[১]সরকারি সম্পত্তি ব্যবস্থাপনায় বিধিমালা করছে সরকার

আমাদের নতুন সময় : 22/11/2020

আনিস তপন : [২] সারাদেশে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা সরকারি সম্পত্তির রেকর্ড হালনাগাদকরণসহ সুষ্ঠভাবে তা ব্যবস্থাপনার লক্ষ্যে ‘সরকারি সম্পত্তি ব্যবস্থাপনা ও বন্দোবস্তের বিধিমালা, ২০২০’ তৈরী করেছে সরকার। অর্পিত সম্পত্তি প্রত্যার্পণ আইন অনুযায়ী এই বিধিমালা তৈরী করছে ভূমি মন্ত্রণালয়।
[৩] আইনের আওতায় দেশের যে কোনো নাগরিক প্রস্তাবিত বিধিমালার অধীনে নির্ধারিত ফরমে আবেদন ও হলফনামার মাধ্যমে সরকারি সম্পত্তি স্থায়ী ও অস্থায়ীভাবে ইজারা নিতে পারবেন। তবে দেশের শহরাঞ্চলে জমি, বাড়ি বা ফ্ল্যাট আছে এমন ব্যক্তি সংগঠন আবাসিক প্রয়োজনে শহরাঞ্চলে কোনোরুপ অকৃষি সম্পত্তি ইজারা পাবেন না।
[৪] সরকারি সম্পত্তি বিক্রয় বা স্থায়ী ইজারা দেয়ার ক্ষেত্রে, সংশ্লিষ্ট হোল্ডিং-খতিয়ানভুক্ত সেই ভূমির যিনি উত্তরাধিকার সূত্রে সহ-অংশীদারকে (যদি থাকে) অগ্রাধিকার দেয়া হবে আর যদি সহ-অংশীদার না থাকে তবে যিনি বিক্রয়ের পূর্বে ইজারাসূত্রে ভোগদখল করতেন তাকে অগ্রাধিকার দেয়া হয়েছে।
[৫] সরকারি প্রয়োজনে কৃষি-অকৃষি সরকারি সম্পত্তি সরকারি/আধাসরকারি/স্বায়ত্বশাসিত দপ্তর/সংস্থাকে বাজার মূল্যে স্থায়ী ইজারা দেয়া যাবে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ধর্মীয় উপাসনালয়, এতিমখানা, আশ্রম, কবরস্থান, শ্বশানঘাট স্থাপনের প্রয়োজনে বাজারমূল্যেও অর্ধেক মূল্যে স্থায়ী ইজারা দেয়া যাবে। [৬] আবাসিক প্রয়োজনে কোনো ব্যক্তিকে মেট্রোপলিটন/সিটি করপোরেশন এলাকায় সর্বোচ্চ পাঁচ শতাংশ ও বাইরে সর্বোচ্চ আট শতাংশ সরকার প্রধানের অনুমতি নিয়ে বাজারমূল্যে স্থায়ী ইজারা দেয়া যাবে। মুক্তিযোদ্ধাদের সমন্বয়ে গঠিত সংগঠনকে বাজারমূল্যের অর্ধেক মূল্যে ও গৃহহীনদের পুর্নবাসনের লক্ষ্যে সরকার আশ্রায়ন, গুচ্ছগ্রাম বা এরূপ প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে চাইলে বিনামূল্যে সরকারি সম্পত্তি বরাদ্দ করতে পারবে সরকার।
[৭] জেলা প্রশাসকের নেতৃত্বে ১১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি সরকারি সম্পত্তির বাজারমূল্য নির্ধারণ করবে বলা হয়েছে বিধিমালায়। সম্পাদনা: শাহানুজ্জামান টিটু




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]