• প্রচ্ছদ » শেষ পাতা » [১]বিজ্ঞানী স্যার জগদীশচন্দ্র বসুর জন্মদিন আজ [২]তিনি প্রথম মাইক্রোওয়েভ প্রযুক্তির ওপর সফল গবেষণা করেন, বেতার যন্ত্রের প্রথম উদ্ভাবক হিসাবে চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবেন


[১]বিজ্ঞানী স্যার জগদীশচন্দ্র বসুর জন্মদিন আজ [২]তিনি প্রথম মাইক্রোওয়েভ প্রযুক্তির ওপর সফল গবেষণা করেন, বেতার যন্ত্রের প্রথম উদ্ভাবক হিসাবে চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবেন

আমাদের নতুন সময় : 30/11/2020

আব্দুল্লাহ মামুন : [৩] তাঁর উল্লেখযোগ্য আবিষ্কারের মধ্যে রয়েছে মাইক্রোওয়েভ রিসিভার ও ট্রান্সমিটারের উন্নয়ন, এবং ক্রেসকোগ্রাফ যন্ত্র যা দিয়ে গাছের বৃদ্ধি নিখুঁতভাবে পরিমাপ করা যায়। উদ্ভিদের জীবনচক্র তিনিই প্রমাণ করেছিলেন। জগদীশ চন্দ্র বসুর জন্ম ১৮৫৮ সালের ৩০ নভেম্বর ময়মনসিংহে। তার পরিবারের আদি বাসস্থান ছিল বিক্রমপুরের রাঢ়িখালে।
[৪] জগদীশচন্দ্র বসু শিক্ষাজীবন শুরু করেছিলেন ফরিদপুরের একটি স্কুলে এরপর ১১ বছর বয়সে কলকাতা চলে যান এবং সেখানে সেন্ট জেভিয়ার্স স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে ১৮৭৫ সালে এন্ট্রাস পাশ করেন। বিজ্ঞানে স্নাতক হবার পর ১৮৭৯ সালে উচ্চশিক্ষার জন্য যান ইংল্যাণ্ডে। সেখানে কেম্ব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে প্রাকৃতিক বিজ্ঞান বিষয়ে বি.এ. পাশ করেন। ১৮৮৪ সালে লন্ডন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বি.এস.সি. ডিগ্রি লাভ করেন।
[৫] জগদীশ বসুর প্রায় সমসাময়িক ইতালীয় বিজ্ঞানী গুগলিয়েমো মার্কনি একই সময়ে বৈদ্যুতিক চুম্বক তরঙ্গ ব্যবহার করে শব্দ তরঙ্গ পাঠাতে সফল হয়েছিলেন। কিন্তু জগদীশ বসু তার আবিষ্কারকে নিজের নামে পেটেন্ট না করায় বেতার আবিষ্কারের জন্য স্বীকৃত দাবিদার হন মার্কনি। ইংল্যাণ্ড থেকে স্বদেশে ফেরার পর তিনি কলকাতার প্রেসিডেন্সি কলেজে পদার্থবিদ্যার অধ্যাপক হিসাবে যোগ দেন। বৈদ্যুতিক তরঙ্গের ওপর গবেষণার কাজ শুরু করেন ১৮৯৪ সালে। ১৮৯৬ সালে লণ্ডন ইউনিভার্সিটি থেকে ডক্টর অফ সায়েন্স উপাধি পান। [৬] তাঁকে ভারতীয় উপমহাদেশে বিজ্ঞান চর্চ্চার জনক। সম্পাদনা : সমর চক্রবর্তী




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]