• প্রচ্ছদ » শেষ পাতা » [১]যুদ্ধকালীন প্রস্তুতি নিয়ে ইতিহাসের বৃহত্তম টিকা কার্যক্রম শুরু করলো যুক্তরাজ্য [২]প্রস্তুত ৫০ হাসপাতাল, সেনাবাহিনীকে ফরোয়ার্ড মার্চের নির্দেশ


[১]যুদ্ধকালীন প্রস্তুতি নিয়ে ইতিহাসের বৃহত্তম টিকা কার্যক্রম শুরু করলো যুক্তরাজ্য [২]প্রস্তুত ৫০ হাসপাতাল, সেনাবাহিনীকে ফরোয়ার্ড মার্চের নির্দেশ

আমাদের নতুন সময় : 04/12/2020


আসিফুজ্জামান পৃথিল: [৩] বৃহস্পতিবার একটি ড্রাই রান অর্থাৎ ভ্যাকসিন ছাড়াই মক ট্রায়াল বা মহড়া করেছে ব্রিটিশ সামরিক বাহিনী। পশ্চিমা বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে ফাইজারের করোনাভ্যাকসিন অনুমোদনের পর এই সুবিশাল কার্যক্রম শুরু করলো দেশটি। এতোদিন বাংলাদেশে প্রতিবছর অনুষ্ঠিত টিকা কার্যক্রমকেই বিশ্বের বৃহত্তম বলে চিহ্নিত করা হতো। ডেইলি মেইল
[৪] আগামী সপ্তাহ থেকে ৪ কোটি টিকা রোল আউটের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে ব্রিটিশ সেনাবাহিনীকে। ৫০টি চিহ্নিত হাসপাতালে ঘাঁটি বসাতে শুরু করেছে তারা। সেনা হেলিকপ্টারগুলোও ভ্যাকসিন বহনের জন্য প্রস্তুত হয়ে গেছে। সামরিক বাহিনীর কমান্ডার ইন চিফ রানি এলিজাবেথ প্রয়োজনে নৌবাহিনীর ট্রান্সপোর্ট ব্যবহার করার অনুমতি দিয়ে রেখেছেন বলে একটি সূত্র জানিয়েছে। দ্য সান
[৫] ন্যাশনাল হেলথ সার্ভিসের (এনএইচএস) প্রধান নির্বাহী স্যার সিমন স্টিভেন্স জানান, তিনি সেনাবাহিনীর প্রস্তুতি নিয়ে সন্তুষ্ট। তবে সেনা নিয়ন্ত্রণের ভার এনএইচএস নয়, সরাসরি রানির হাতেই থাকবে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক জেনারেল ডেইলি টেলিগ্রাফকে জানান, তাদের যুদ্ধকালীন প্রস্তুতি নিতে বলা হয়েছে। ২য় বিশ্বযুদ্ধের পর এটিই ব্রিটিশ বাহিনীর সবচেয়ে বড় প্রকল্প। বিশেষত গত শতকের প্রধান ওয়ার্কফোর্স ব্রিটিশ-ইন্ডিয়ান আর্মি আলাদা হয়ে যাবার পর এতো বড় কার্যক্রম আর চালায়নি ব্রিটিশ সামরিক বাহিনী। সম্পাদনা: সালেহ্ বিপ্লব




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]