• প্রচ্ছদ » প্রথম পাতা » [১]দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর ২০২০ ছিলো পৃথিবীর অর্থনীতিতে সবচেয়ে অন্ধকার বছর [২]সেই নিকষ কালোতেই আলোর মশাল জ্বেলেছে বাংলাদেশ, মহামারির মধ্যেও নিজেকে প্রমাণ করেছে সবচেয়ে দ্রুত বর্ধনশীল অর্থনীতি হিসেবে


[১]দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর ২০২০ ছিলো পৃথিবীর অর্থনীতিতে সবচেয়ে অন্ধকার বছর [২]সেই নিকষ কালোতেই আলোর মশাল জ্বেলেছে বাংলাদেশ, মহামারির মধ্যেও নিজেকে প্রমাণ করেছে সবচেয়ে দ্রুত বর্ধনশীল অর্থনীতি হিসেবে

আমাদের নতুন সময় : 02/01/2021

আসিফুজ্জামান পৃথিল: [৩] সারা বিশ্বের অর্থনীতিই গত বছর সংকুচিত হয়েছে, ব্যতিক্রম নয় বাংলাদেশও। প্রায় ৯ শতাংশ জিডিপি প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা ছিলো। আইএমএফ জানায়, অর্জন হয়েছে ৩.৮। তবে এশিয়ার আর কোনও দেশ বাংলাদেশের সমান প্রবৃদ্ধি অর্জন করতে পারেনি। [৪] এশিয়ায় আর মাত্র তিনটি দেশে ইতিবাচক প্রবৃদ্ধি হয়েছে। ভিয়েতনাম ১.৬, চীন ১.৯ এবং মিয়ানমার ২ শতাংশ। [৫] ভারতের ম্যামথ আকারের অর্থনীতি অতিমহামারির ধাক্কা সামলাতে পুরোপুরি ব্যর্থ। সদ্য সমাপ্ত বছরটিতে তাদের প্রবৃদ্ধি মাইনাস ১০.৩ শতাংশ, অর্থাৎ তাদের জিডিপি ১০ ভাগের এক ভাগ সংকুচিত হয়েছে। [৬] মার্চের শেষদিকে লকডাউন ঘোষণার পর দেশে বহু ব্যবসা বন্ধ হয়ে যায়, চাকরি হারান লাখ লাখ মানুষ। দারিদ্রের হার দ্বিগুণ হয়ে যায়। পরিস্থিতি মোকাবেলায় সরকার ১২ হাজার কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করে। ব্যাংক সুদহার সীমিত রাখা হয় সিঙ্গেল ডিজিটে। সবার আগে তৈরি পোষাক কারখানাগুলো খুলে দিয়ে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়লেও ফল ছিলো চমকপ্রদ।
[৭] সব মিলিয়ে সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনায় বাংলাদেশের অর্থনীতি পুরোপুরি ঘুরে দাঁড়ায়। ব্লুমবার্গের ভাষায়, ‘এশিয়ান টাইগারটি একটু ঝিমিয়ে নিয়ে আবারও গর্জন করতে শুরু করেছে।’ [৮] বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, চীন-যুক্তরাষ্ট্র বাণিজ্য যুদ্ধ আর ব্রেক্সিট থেকে সর্বাধিক সুবিধা নেওয়ার সক্ষমতা রয়েছে বাংলাদেশের। তাই ২০২১ হতে যাচ্ছে নতুন সম্ভাবনার বছর। সম্পাদনা: সালেহ্ বিপ্লব




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]