• প্রচ্ছদ » প্রথম পাতা » [১]ইকোনমিক ইন্টেলিজেন্স গ্রুপের সর্বশেষ সূচক অনুযায়ী যুক্তরাষ্ট্র মোটেও প্রতিষ্ঠিত গণতান্ত্রিক দেশ নয়, গণতন্ত্র সেখানে ম্রিয়মাণ [২]বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, দেশটি যতই উদার হোক না কেন রাজনৈতিক সংস্কৃতিই গড়ে ওঠেনি


[১]ইকোনমিক ইন্টেলিজেন্স গ্রুপের সর্বশেষ সূচক অনুযায়ী যুক্তরাষ্ট্র মোটেও প্রতিষ্ঠিত গণতান্ত্রিক দেশ নয়, গণতন্ত্র সেখানে ম্রিয়মাণ [২]বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, দেশটি যতই উদার হোক না কেন রাজনৈতিক সংস্কৃতিই গড়ে ওঠেনি

আমাদের নতুন সময় : 09/01/2021

আসিফুজ্জামান পৃথিল: [৩] যুক্তরাষ্ট্র পৃথিবীর প্রথম দেশ, যার জন্মই হয়েছিলো গণতান্ত্রিক ধারণার উপর ভিত্তি করে। কিন্তু ২০২০ সালে প্রকাশিত ইআইজি’র বৈশ্বিক গণতন্ত্র সূচক-২০১৯ অনুযায়ী, বৈশ্বিক গণতান্ত্রিক অবস্থানে তাদের অবস্থান ২৫। পিছিয়ে আছে তুলনামূলক নবীন অনেক গণতন্ত্র এবং সাংবিধানিক রাজতন্ত্রের চেয়ে। [৪] গণতন্ত্র সূচকে যুক্তরাষ্ট্রের স্কোর ৭.৯৬। তবে তাদের নির্বাচনী ব্যবস্থা তুলনামূলক ভালো, সূচকে জানিয়েছে ইকোনমিক ইন্টেলিজেন্স। [৫] গবেষণা সংস্থাটির মতে, সুষ্ঠু নির্বাচনই গণতন্ত্রের একমাত্র ভিত্তি হতে পারে না। যেসব দেশে শক্তিশালী নির্বাচনী ব্যবস্থা আছে কিন্তু কখনও কখনও তছরুপের শঙ্কাও থাকে এবং যেখানে কিছু গোষ্ঠীর উপর নির্যাতন করা হয়, সব নাগরিককে এক চোখে দেখা হয় না- তারাই ম্রিয়মান গণতন্ত্র। এটির দুটি ক্যাটাগরি রয়েছে। প্রথমটি সামান্য ম্রিয়মান, পরেরটি অধিক ম্রিয়মান। যুক্তরাষ্ট্র প্রথম ক্যাটাগরির আর ভারত দ্বিতীয় ২য় ক্যাটাগরিতে। [৬] ভারত ছাড়া দক্ষিণ এশিয়ায় একমাত্র শ্রীলঙ্কার গণতন্ত্র ৮০ নম্বরে থাকা বাংলাদেশের চেয়ে মজবুত। বাকি সব দেশের অবস্থান বাংলাদেশের চেয়ে নিচে। তবে এই অঞ্চলে কোনও স্বৈরশাসন নেই। [৭] স্বৈরশাসনে থাকা দেশগুলোর মধ্যে রয়েছে জর্ডান, কুয়েত, সৌদি আরব, চীন, ভিয়েতনাম ও লাওসসহ বেশ কিছু দেশ। গণতন্ত্র একেবারেই নেই উত্তর কোরিয়ায়। সম্পাদনা: সালেহ্ বিপ্লব




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]