• প্রচ্ছদ » » বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘরে ফেরা, বিজয় পূর্ণতার দিন


বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘরে ফেরা, বিজয় পূর্ণতার দিন

আমাদের নতুন সময় : 11/01/2021

ড. জিনাত হুদা : ১৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশের বিজয় দিবস। ৩০ লাখ প্রাণের বিনিময়ে, ২ লাখ মা-বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে আমাদের এই মহান বিজয়। বঙ্গবন্ধু ৯ মাস পাকিস্তানের কারাগারে ছিলেন। অথচ বহু মানুষ জানতোই না এটা। বঙ্গবন্ধু হচ্ছেন সেই বীর পুরুষ যার নেতৃত্বে সাড়ে সাত কোটি বাঙালি যুদ্ধ করেছে। বঙ্গবন্ধুর ডাকে বাংলার জনগণ অস্ত্র হাতে যুদ্ধ করেছে, বিভিন্নভাবে নির্যাতিত হয়েছে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এতোটাই প্রাজ্ঞ নেতা ছিলেন যে, ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ ইউনেস্কো কর্তৃক বিশে^র ঐতিহাহিক দলিল হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। সেই ৭ মাচের্র ভাষণে বাঙালির করণীয় কী তা বলেছিলেন বঙ্গবন্ধু। আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দকে নির্দেশনা দিয়ে গিয়েছিলেন, তাদের কী করতে হবে। যারা সমাজকর্মী তাদের র্নিদেশনা দিয়ে গিয়েছিলেন, গণমাধ্যম কর্মীদেরও বলে গিয়েছিলেন কী করতে হবে, না করতে হবে। [৩] তিনি বলেছিলেন, ‘আমাদের যা কিছু আছে তাই নিয়ে শত্রæ মোকাবেলায় প্রস্তুত থাকতে হবে। বাংলাদেশের প্রাকৃতিক অবস্থা থেকে পাকিস্তানিদের কাছ থেকে আমাদের প্রাপ্য অধিকার আদায় করতে যা প্রয়োজনে তাই করবো আমরা। তাদেরকে পানিতে মারবো, ভাতে মারবো, স্থলে মারবো, আমাদের অধিকার আদায় করে ছাড়বোই।’ [৪] ২৫ মার্চ কালরাতে যখন গণহত্যা চলে নিরীহ বাংলাদেশের মানুষের ওপর, ২৬ মার্চের প্রথম প্রহরে তিনি স্বাধীনতার ঘোষণা দেন। তিনি বলেন ‘একজন পাকিস্তানিও যদি বাংলার মাটিতে থাকে, আমাদের লড়াই চালিয়ে যেতে হবে।’ বঙ্গবন্ধু অনুপস্থিতিত থাকা সত্যেও বঙ্গবন্ধুর নির্দেশ-উপদেশে, অনুপ্রেরণায়, আহŸানে সাড়া দিয়ে মুক্তিকামী বাঙালি, বঞ্চিত, নিপীড়িত বাঙালি অধিকার আদায়ে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলো স্বাধীনতার জন্য। ১৬ ডিসেম্বর বাঙালি জাতি স্বাধীনতা লাভ করে, বাংলার জনগণ আনন্দে-উল্লাসে ভাসতে থাকে। পাকিস্তানি কারাগার থেকে মুক্তি পেয়ে ১৯৭২ সালের ১০ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধু স্বদেশ প্রত্যাবর্তন করেন। [৫] বঙ্গবন্ধুকে পেয়ে বাংলার আপামর জনগণ বাঁধবাঙ্গা উচ্ছ¡াসে মেতে ওঠে। বাঙালির বিজয় পূর্ণতা পায় ১০ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের মাধ্যমে। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিলো সোনার বাংলা গড়া। পাকিস্তানিরা সোনার বাংলাকে শ^শান বানিয়ে দিয়ে গেছে, অর্থনৈতিকভাবে শূন্য করেছে, অবকাঠামোগতভাবে শূন্য করেছেন, সাংস্কৃতিক ক্ষেত্রে শূন্যতা সৃষ্টি করে গিয়েছিলো। জিয়াউর রহমান গং, জামায়াতে ইসলাম ও দেশবিরোধী শক্তি, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নটাকে ভেঙে চুরমার করার চেষ্টা করেছিলো। তারা বুঝতে পারেনি, বঙ্গবন্ধুর দেহের মৃত্যু হলেও তার আদর্শের মৃত্যু হয়নি। পরিচিতি : অধ্যাপক, সমাজবিজ্ঞান বিভাগ, ঢাবি। সাক্ষাৎকারের ভিত্তিতে লিখেছেন মাসুদ হাসান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]