• প্রচ্ছদ » » মিজান, তবুও আপনাকে এতো ভালোবাসলাম কেন আমি!


মিজান, তবুও আপনাকে এতো ভালোবাসলাম কেন আমি!

আমাদের নতুন সময় : 13/01/2021

ড. আসিফ নজরুল : কাঁদছি, আবার একটা জিনিস দেখে ভালোও লাগছে মিজান। কতো মৃত্যুর সহযাত্রী হলাম আমরা ফেসবুকে। কারও জন্য এতো ভালোবাসা, এতো শোক, এমন আহাজারি দেখিনি কখনো। মিজান আপনি যখন মারা যাবেন জানলাম, একটা অদ্ভূত জিনিস মনে হলো। মনে হলো কারও মৃত্যুর সময় যদি আয়ু দানের নিয়ম থাকতো, মনে হলো আমরা যদি সবাই একটু একটু করে নিজের আয়ু দিয়ে বাঁচিয়ে রাখতে পারতাম আপনাকে। কোনোদিন খুব ঘনিষ্ঠতা হয়নি, কোনোদিন আপনাকে এতো ভালোবাসতাম কিনা জানতাম না, কোনো কোনো দিন আপনার লেখায় জটিল বাক্য থাকলে সামান্য বিরক্তও হতাম। কিন্তু আপনাকে তারপরও এতো ভালোবাসলাম কেন আমি! আমরা সকলে, সবাই। এমন ভালোবাসায় মৃত্যু হয় কতো বড় মানুষের। আল্লাহ আমাদের বুকের ভেতরের সাক্ষ্য নাও। আমাদের মিজান ভালো মানুষ ছিলো, তাকে ভালো রেখো।
নির্বাচিত মন্তব্য : রাসেল মনির-কোনো সাংবাদিকের মৃত্যুতে বুকটা মোচড় দিয়ে উঠলো। খবরটা দেখেই মনটা কষ্টে ভারী হয়ে গেলো। পেপার পত্রিকায় সাংবিধানিক বিষয়ে তার মতো বিশ্লেষণাত্মক লেখা খুব কমই লিখতে দেখি। কঠিন জটিল বিষয়গুলো এতো সহজপাঠ্য করে লিখতেন। পড়তেই ভাল লাগতো। তার প্রায় সব কলামগুলোই মনোযোগ দিয়ে পড়তাম। বাংলাদেশ একজন জ্ঞানী, প্রতিভাধর ও সাহসী সাংবাদিককে হারালো। আল্লাহ তাকে জান্নাতবাসী করুন।
[২] সাইদুর রহমান-মিজানুর রহমান খান। প্রথম আলোর উপ-সম্পাদক। তার অনেক মতের সাথে আমি একমত ছিলাম না কিন্তু তিনি অনুসন্ধানী আইন ও বিচার বিভাগের সংবাদে ছিলেন আমার আইডল। যেদিন মিজান স্যারের লেখা পেতাম পত্রিকা পড়া যেন স্বার্থক মনে হতো। আমার অসম্ভব ভালো লাগত উনার লেখা। আমার খুবই পছন্দের একজন সাংবাদিক ছিলেন। তার সাক্ষাৎকারগুলো বাংলাদেশের দলিল হয়ে থাকবে। শুনেছি বাংলাদেশের প্রথম শ্রেণির আইনবিদরা মিজানুর রহমান খানের আইনি ব্যাখ্যকেই সব চাইতে বেশি গ্রহণযোগ্য মনে করতেন। এক ক্ষণজন্মা মহান ব্যক্তিত্ব, আইনাঙ্গনের ধ্রæব তারা। হে আল্লাহ, মানুষ মাত্রই আমরা ভুল করি, মিজানুর রহমান খানকে আপনি ক্ষমা করুণ এবং তাকে দয়া করুণ, শান্তিতে রাখুন, তার থাকার স্থানটিকে মর্যাদাশীল করুণ, তার কবরকে প্রশস্থ করে দিন।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]