• প্রচ্ছদ » » পরবর্তী টিকা এবং আরেকজন অভিবাসী বিজ্ঞানী


পরবর্তী টিকা এবং আরেকজন অভিবাসী বিজ্ঞানী

আমাদের নতুন সময় : 14/01/2021

রুমি আহমেদ : আশা করি পরবর্তী টিকা এই মাসের শেষের দিকে অথবা ফেব্রæয়ারির শুরুতে বের হবে এবং ফেব্রæয়ারির মধ্যে এফডিএ থেকে একটি ইউরোপীয়ান প্রত্যাশিত হবে। এটি জ্যানসেন, জনসন এবং জনসন এর টিকা বিভাগ থেকে অ্যাডনোভাইরাস টিকা- বেথ ইসরায়েল ডিকনেস মেডিকেল সেন্টার/হার্ভার্ড মেডিকেল স্কুলে সেন্টার ফর ভাইরোলজি এবং টিকা গবেষণার সহযোগিতায় তৈরি।
এই টিকা শিল্প কাটার প্রান্তের একটি রাজ্য ব্যবহার করে, এমআরএনএ টিকা প্রযুক্তির তুলনায় আরো প্রতিষ্ঠিত প্রযুক্তির অ্যালবিট। এখানে যা ঘটে তা হলো বিজ্ঞানীরা অ্যাডেনভাইরাস নামক সাধারণ ক্ষতিকর মানব বায়ুপথ ভাইরাস গ্রহণ করে এবং এই অ্যাডেনভাইরাসে একটি ছোট করোনাভাইরাস জিন প্রবেশ করিয়ে দেয়। এই করোনাভাইরাস জিন-অ্যাডেনোভাইরাস কোডগুলোতে করোনাভাইরাস স্পাইক প্রোটিন উৎপাদনের জন্য প্রবেশ করেছে। সুতরাং ভাইরাসটি শরীরে প্রবেশ করে ইনকুলেশন দিয়ে এবং স্পাইক প্রোটিন প্রতিলিপি এবং উৎপাদন শুরু করে । কোষগুলো স্পাইক প্রোটিন উৎপাদন শুরু করে এবং কোষের বাইরে সেগুলো ছেড়ে দেয়- শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা স্পাইক প্রোটিনকে বিদেশি হিসেবে স্বীকৃতি দেয় এবং স্পাইক প্রোটিনের বিপরীতে অ্যান্টিবডি এবং সেলুলার ইমিউনিটি উৎপাদন করে।
তাহলে যখন আসল ভাইরাস আক্রমণ করে- শরীর দ্রæত চিনে নেয় ভাইরাসের স্পাইক প্রোটিন যাতে ভাইরাস ধ্বংস করে। অন্য দুটি অনুমোদিত ভ্যাক্সিন আনলাইক করুন- এটি একটি শট ভ্যাক্সিন এবং ভ্যাকসিনটি স্বাভাবিক ফ্রিজে সংরক্ষণ করা যেতে পারে। আর ভ্যাকসিনটি অনেক সস্তা হওয়ার কথা এবং এই ভ্যাকসিন দিয়ে মুনাফা না করার পরিকল্পনা প্রস্তুতকারকের এবং এই প্রচেষ্টার নেতৃত্ব দিচ্ছে কে? বৈচিত্র্যের আরেকটি ফল, মাথাই মাম্মেন নামে আরেকজন অভিবাসী বিজ্ঞানী, এম। উ., চয. ডি., গেøাবাল হেড, জনসেন রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট, জনসন অ্যান্ড জনসন। ভারতের কেরালা থেকে একজন প্রবাসী। ড. ম্যামেন এই ভ্যাকসিনের বৈজ্ঞানিক নেতৃত্বের সঙ্গে সহযোগিতা করেছেন, ড্যান বারাউচ, এম. উ., চয. ডি., এবং তার দল বেথ ইজরায়েল ডিকনেস মেডিক্যাল সেন্টারে ভাইরোলজি এবং টিকা গবেষণা কেন্দ্র। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]