যা দরকার : প্যারাডাইম শিফট!

আমাদের নতুন সময় : 16/01/2021

মাসুদ রানা : সন্দেহ নেই যে,ঢাকায় জন্মিত ও কলকাতায় বিকশিত শিবদাস ঘোষ ছিলেন অত্যন্ত প্রভাবশালী ও সৃষ্টিশীল মার্ক্সবাদী,যিনি মার্ক্সবাদের রেফারেন্সে কিছু লাইন অফ আর্গ্যুমেণ্ট তৈরি করেছেন,যার ভিত্তিতে ভারতে এসইউসিআই দল ছাড়াও বাংলাদেশে জাসদ ভেঙ্গে বাসদ নামের একটি দল সৃষ্ট হয় ১৯৮০ সালে। একইভাবে ঐ শিবদাস ঘোষের চিন্তা নিয়েই বাসদ দলটিও ভাঙ্গে একবার ১৯৮৩ সালে এবং তারপর আবার ২০১৩ সালে,এবং আরেকবার অতি সা¤প্রতিক কালে। এখন বাসদ পরিচয়ে কমপক্ষে ৫টি দল আছে, এবং এদের প্রতিটিই নিজেদেরকে একমাত্র ও খাঁটি মার্ক্সবাদী বিপ্লবী দল মনে করে। সত্যি,তাঁরা সিরিয়াসলিই তাই মনে করেন,যদিও আর কেউই তা আদৌ মনে করেন না। অবশ্য,তাতে তাঁদের কিছুই যায় আসে না। উল্লেখ্য,এই যে এ-গুণটি,এটি হচ্ছে শিবদাস ঘোষের চিন্তার একটি বৈশিষ্ট্য।
অর্থাৎ,আমি বলতে চাইছি বহুধা বিভক্ত হলেও মানসিক গড়নের দিক থেকে সবগুলো বাসদই একই প্রকারের এবং এঁদের চিন্তাপদ্ধতিও অভিন্ন। এমনকি, যাঁরা বর্তমানে বাসদ করেন না,কিন্তু বাসদ করতেন বলে এটি আত্মপরিচয় ধারণ করে আমরা যারা বাসদে ছিলাম নামে গ্রæপ তৈরি করে ‘ছিলাম-এর সাথে আছি যুক্ত করে এক প্রকারের থাকবোর ভিত্তি তৈরি করেছেন,তাঁদেরও মনন ও চিন্তন প্রায় অভিন্ন। বিজ্ঞানের ভাষায় বলতে গেলে বলতে হয়,এরা সকলেই এক অভিন্ন প্যারাডাইমে চিন্তা করছে এবং উত্তরণের পথ না পেয়ে পরস্পরের ওপর দোষারোপ করছে। কিন্তু এতে কি আর পথে সন্ধান মিলবে বা কখনও মিলেছে? না! আমি মনে করি, প্রয়োজন হচ্ছে-আবারও বিজ্ঞানের ভাষায়-প্যারাডাইম শিফট!এদের মধ্যে যদি বিজ্ঞানের দর্শন বুঝতে পারার মতো কেউ থেকে থাকেন অর্থাৎ বিজ্ঞানের দর্শনে লিটারেইট থাকেন,তাদের প্রতি আমি প্যারাডাই শিফটের পরামর্শ দেবো। ০৯/০১/২০২১। লÐন, ইংল্যাÐ।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]