• প্রচ্ছদ » » শিশিরের শব্দ কি আমরা শুনতে পাই?


শিশিরের শব্দ কি আমরা শুনতে পাই?

আমাদের নতুন সময় : 16/01/2021

আহসান হাবিব : শিশিরের শব্দ কি আমরা শুনতে পাই? না, পাই না, কিন্তু কেন পাই না? শিশির যখন ঝরে পড়ে বায়ুর ভেতর দিয়ে, তখন নিশ্চয়ই সে কিছু বস্তুকে সরায়, কেননা পতনশীল বস্তু ইতোমধ্যেই কিছু শক্তি অর্জন করে ফেলে এবং সেই শক্তি কাজ করার ক্ষমতায় রূপান্তরিত হয়। শিশির-সুনির্দিষ্ট জলের একত্রে লেগে থাকা, সেও এক ফিজিক্স বটে, জলের অণুগুলোর পারস্পরিক চাপ এমনভাবে যুক্ত যার ফলাফল শূন্য- যখন ঝরতে থাকে তখন সে বায়ুর ভেতর থাকা অণুকে একটা চাপ দেয়, এ চাপ একটা তরঙ্গ তৈরি করে, এই তরঙ্গ পরবর্তী অণুকে চাপ দেয়, এভাবে বস্তু নিজে না সরে তরঙ্গ প্রবাহিত করতে থাকে। এই তরঙ্গ সৃষ্টি করে শব্দ। শব্দ মানেই তা, যা আমরা শুনতে পাই। না, কথাটা ঠিক হোল না, সব শব্দ আমরা শুনি না, আমাদের কানের একটা নির্দিষ্ট ক্ষমতা আছে, যা নির্দিষ্ট তরঙ্গ দৈর্ঘ্যরে শব্দকে শুনতে পায়। এই তরঙ্গ সৃষ্টি হয় কম্পাংকের দ্বারা। সুবিধার জন্য এই কম্পাঙ্ককে আমরা হার্জ এই একক দিয়ে প্রকাশ করি। দেখা গেছে আমাদের শ্রবণেন্দ্রিয় ২০ থেকে ২০০০০ এর মধ্যে থাকা কম্পাংকের শব্দ শুনতে সক্ষম এবং শনাক্ত করতে পারে শব্দের সম্ভাব্য উৎস। শিশিরের শব্দ আমরা শুনতে পাই না। কারণ এর তরঙ্গ দৈর্ঘ্য খুব, খুব কম। তবে কেউ কেউ শুনতে পান, বিশেষত জীবনানন্দ পান আর একদল মানুষ আছে এই পৃথিবীতে যারা এই শব্দ শুনতে পায়, তারা আর কেউ নয় ‘প্রেমিক’। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]