• প্রচ্ছদ » শেষ পাতা » [১]দেশজুড়ে মাদক সিন্ডিকেট, নিয়ন্ত্রণ হয় ঢাকা থেকে [২]সীমান্তে বিজিবি, সারাদেশে র‌্যাব-পুলিশ হিমশিম খাচ্ছে


[১]দেশজুড়ে মাদক সিন্ডিকেট, নিয়ন্ত্রণ হয় ঢাকা থেকে [২]সীমান্তে বিজিবি, সারাদেশে র‌্যাব-পুলিশ হিমশিম খাচ্ছে

আমাদের নতুন সময় : 16/01/2021

ইসমাঈল ইমু: [৩] আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর অভিযানের মধ্যেই দেশজুড়ে মাদকের সিন্ডিট সক্রিয় রয়েছে। এসব মাদক দেশের সীমান্ত এলাকা থেকে আসলেও গড ফাদাররা সিন্ডিকেট নিয়ন্ত্রণ করে রাজধানীতে বসে। তবে কক্সবাজার ও টেকনাফ সীমান্তে বেশ কিছু ইয়াবা গডফাদার রয়েছে। এছাড়াও আকাশ পথে আসা নতুন মাদক আইস সরবরাহকারিরা হচ্ছে আন্তর্জাাতিক মাদক মাফিয়া। [৪] বৃহস্পতিবার রাতে রাজধানীর হাতিরপুল ও হাতিরঝিল মহানগর প্রজেক্ট এলাকায় অভিযান চালিয়ে আইস, হেরোইন ও ইয়াবাসহ চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এরা হলেন- আশরাফুর রহমান ওরফে সবুজ (৪৫), সুমন খন্দকার ওরফে চিকু সুমন (৩৫), সোহেল রানা (২৫) ও নাহিদ আলম সজল (৩৬)। [৫] একই সময়ে রামপুরা থেকে ১ হাজার ইয়াবাসহ আসমা বেগম (৪০) নামের এক নারী মাদক কারবারীকে গ্রেপ্তার করেছে ঢাকা মহানহর গোয়েন্দা পুলিশ। [৬] ২০১৭ সালের মে মাসে মাদকের ব্যাপারে জিরো টলারেন্স (শূন্য সহিষ্ণুতা) ঘোষণার পর দেশব্যাপী সাঁড়াশি অভিযান শুরু হলে বন্দুকযুদ্ধে অনেক মাদক কারবারি নিহত হন। কিন্তু মৃত্যুভয় উপেক্ষা করে টেকনাফসহ সীমান্ত এলাকা দিয়ে মাদকের পাচার এখনও অব্যাহত। সম্পাদনা: শাহানুজ্জামান টিটু

 

[১]চলতি বছরই ভারতের সঙ্গে ঢাকা-শিলিগুড়ি সরাসরি বাস চালুর চুক্তি করতে চায় বাংলাদেশ

মাছুম বিল্লাহ: [২] সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের কর্মকর্তারা জানান, বুধবার দুদেশের মধ্যে এক ভার্চুয়াল সভায় এ বিষয়ে আলোচনা হয়েছে।
[৩] সড়ক ও মহাসড়ক বিভাগের (আরএইচডি) এক কর্মকর্তা বলেছেন, চুক্তির বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে সরকারের শীর্ষ পর্যায়ে। এই রুটের সঙ্গে নেপাল ও ভুটানে বাস সার্ভিস পরিচালনার পরিকল্পনা রয়েছে।
[৪] আরএইচডির কর্মকর্তা মারুফা ইসমত জানান, দ্বিপাক্ষিক চুক্তি বা বাংলাদেশ-ভারত-নেপাল (বিআইএন) মোটর-যানবাহন চুক্তির (এমভিএ) আওতায় বাস সার্ভিস শিগগিরই শুরু হবে। সম্পাদনা: শাহানুজ্জামান টিটু, সালেহ্ বিপ্লব

 

 

 

[১]ঢাকায় এসে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ক্রিকেটার ওয়ালস কোভিড আক্রান্ত
এল আর বাদল : [২] গত ১০ জানুয়ারি বাংলাদেশে পৌঁছানোর পর ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের সবাইকে কোভিড পরীক্ষা করা হয়। গত চার দিনে দু’বার পরীক্ষা করা হয়েছে দলের সবার। ক্রিকইনফো, বিসিবি
[৩] প্রথমবার পরীক্ষায় কারো কোভিড পজিটিভ ফলাফল না আসলেও গত বৃহস্পতিবার করা দ্বিতীয় পরীক্ষায় পজিটিভ হয়েছেন দলের অলরাউন্ডার হেইডেন জুনিয়র ওয়ালশ। কোভিড পরীক্ষায় পজিটিভ হওয়ায় তাকে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছে ক্রিকেট ওয়েস্টইন্ডিজ। [৪] ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ড আরও জানিয়েছে, ওয়ালশের ওয়ানডে সিরিজে খেলা হচ্ছে না। তবে তার বদলি কে হচ্ছেন সেটা এখনও জানায়নি তারা। ওয়ালশের আগামী এক সপ্তায় আরও দুইবার করোনা পরীক্ষা করা হবে। এই দুই পরীক্ষায় নেগেটিভ হলেই মাঠে নামতে পারবেন ২৫ বছর বয়সী এই খেলোয়াড়। সম্পাদনা: আসিফুজ্জামান পৃথিল

 

 

[১]ট্রাম্পের অভিশংসন প্রক্রিয়া জো বাইডেনকে তার প্রেসিডেন্সি শুরুর দিনগুলোকে তাড়িয়ে বেড়াবে
লিহান লিমা: [২] মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অভিশংসন প্রক্রিয়াকে কেন্দ্র করে অনিশ্চয়তা ও শঙ্কার সম্মুখীন যুক্তরাষ্ট্র। গুরুত্বপূর্ণ শহর ও স্থানগুলোতে টহল দিচ্ছে সশস্ত্র সেনারা, সতর্ক রয়েছে সিক্রেট সার্ভিস। কংগ্রেসের নিম্নকক্ষে ট্রাম্পের অভিশংসনের পক্ষে ভোট দেয়া ১০জন রিপাবলিকান নেতা প্রাণহানির আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন। [৩]হাউস ট্রাম্পের অভিশংসনের প্রস্তাব কখন সিনেটে তুলবে তার সময়সূচী এখনো নির্ধারণ করা হয় নি। অর্থাৎ ট্রাম্পের এই অভিশংসন বাইডেন প্রেসিডেন্সি পর্যন্ত গড়াবে। অন্যদিকে বাইডেন সিনেটের নেতাদের তার প্রেসিডেন্সির প্রথম দিনগুলোতে সব ধরণের বিচারকার্য থেকে বিরত থেকে নতুন প্রশাসনিক বিষয়বস্তুর দিকে নজর দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। [৪]মার্কিন সংবিধানের আওতায় ট্রাম্প ক্ষমতা ছাড়ার আগে কিংবা পরে তাকে অভিযুক্ত করতে হলে সিনেটে দুই-তৃতীয়াংশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রয়োজন হবে। অর্থাৎ ডেমোক্রেট সিনেটরদের সঙ্গে কমপক্ষে ১৭জন রিপাবলিকান সিনেটরের সম্মতির প্রয়োজন হবে। এক্ষেত্রে মিচ ম্যাককলিনের ভোট অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কারণ বাকি রিপাবলিকান নেতারা তাকেই অনুসরণ করবেন। সম্পাদনা: আসিফুজ্জামান পৃথিল

 

[১]ট্রাম্প নয়, ট্রাম্পোইজম নিয়ে আলোচনাই বেশি জরুরি, ওয়েবিনারে বললেন উত্তর আমেরিকার বিশ্লেষকরা [২]তার বিদায়ের মধ্য দিয়ে আমেরিকার রাজনীতিতে ভদ্রতা এবং সৌজন্য ফিরে আসবে [৩]তবে ডানপন্থীদের প্রভাব কমে যাবে তেমনটা ভাবার সুযোগ কম, বরং বাড়ার শঙ্কাই বেশি
সালেহ্ বিপ্লব: [৪] কানাডার ম্যাকমাস্টার ইউনিভার্সিটির রাজনীতি বিজ্ঞানের অধ্যাপক ড. আহমেদ শফিকুল হক বলেন, ব্যক্তি ডোনাল্ড ট্রাম্পকে কেন্দ্রবিন্দুতে না রেখে তার রাজনীতির উপাদানগুলোর দিকে মনোযোগ দিতে হবে।
[৫] টেক্সাসের এ অ্যান্ড এম ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির রাজনীতি বিজ্ঞানের অধ্যাপক ড. মেহনাজ মোমেন বলেন, গত ১৫/ ১৬ বছরে আমেরিকায় ডান এবং বামপন্থী – দুটি জনপ্রিয় গণজাগরণ তৈরি হয়েছে।
[৬] বার্নি স্যান্ডার্সের নেতৃত্বে তৈরি হওয়া বাম জাগরণে সমাজের এলিট সম্প্রদায়ের সমর্থন এবং সম্পৃক্ততা ছিলো। কিন্তু ট্রাম্পের নেতৃত্বাধীন ডানপন্থী জাগরণে এলিট শ্রেণীর সাথে সাধারণ নাগরিকরাও যোগ দিয়েছে। তার ফলশ্রুতিই আজকের আমেরিকা এবং ট্রাম্পের রাজনীতি।
[৭] কানাডাভিত্তিক আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম পর্যবেক্ষণ প্রতিষ্ঠানের মূল্যায়ন সম্পাদক সৈকত রুশদী বলেন, কানাডা ও নিউজিল্যান্ডসহ হাতে গোনা কয়েকটি দেশ বাদ দিলে বিশ্বব্যাপী এখন ডানপন্থী রক্ষণশীলদের উত্থান পর্ব চলছে।
[৮]কানাডার টরন্টো থেকে প্রকাশিত নতুনদেশ পত্রিকার প্রধান সম্পাদক শওগাত আলী সাগর বৃহস্পতিবার তার এ সোশ্যাল মিডিয়া লাইভে বলেন, সামাজিক এবং অর্থনৈতিক বৈষম্য দূর করার উদ্যোগ না নিলে ইউরোপ আমেরিকার দেশগুলোতে চরমপন্থার বিকাশের মাধ্যমে অভিবাসীবিরোধী মনোভাব প্রকট হয়ে উঠবে। সম্পাদনা : মোহাম্মদ রকিব

 

[১]বাংলাদেশকে বিশ্বে তুলে ধরতে জনকূটনীতির
ওপর জোর দিচ্ছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়: ড. মোমেন
কূটনৈতিক প্রতিবেদক: [২] পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ. কে. আব্দুল মোমেন বলেছেন, বাংলাদেশকে অপার সম্ভাবনার দেশ হিসেবে সারা বিশ্বে তুলে ধরতে মন্ত্রণালয় ‘জনকূটনীতি’ অনুবিভাগ চালু করেছে। [৩] দেশের ইমেজ বৃদ্ধির জন্য স্ব স্ব ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠিত ব্যক্তিরা ভূমিকা রাখবেন বলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন। [৪] ফরেন সার্ভিস একাডেমিতে ‘হুজ হুর গুণীজন সম্মাননা সনদ প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ অবিচ্ছিন্ন । মানুষের প্রতি বঙ্গবন্ধুর যে ত্যাগ, তিতিক্ষা তা সবাইকে জানাতে চাই। [৫] পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমরা দেশের বিশাল যুবসমাজের সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে চাই। বিশেষ ক্ষেত্রে অবদান রাখা ব্যক্তিদের পদাঙ্ক অনুসরণ করে সবাইকে দেশের জন্য ও মানুষের জন্য কাজ করতে হবে। [৬] সম্প্রতি শিক্ষা, সংস্কৃতি, সাহিত্য, সাংবাদিকতাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদানের জন্য ১১জন গুণী ব্যক্তি ‘হুজ হু’ বাংলাদেশ, ২০২০ অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয়। [৭] শিল্প ও সাহিত্যে বাংলা একাডেমির সভাপতি শামসুজ্জামান খান, সামাজিক কর্মকাণ্ডে খন্দকার মহিউদ্দীন, কৃষিতে মোঃ আব্দুল বাসির বদু মিয়া, শিল্প-বাণিজ্যে আবদুল হালিম পাটোয়ারী, উদ্যোক্তায় অরর্চাড গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা এবং চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ফারুক, নারী উদ্যোক্তায় বিবি রাসেল। সম্পাদনা:সমর চক্রবর্তী

 

[১]বাণিজ্য যুদ্ধে জিতছে চীন [২]বাধার মুখেও যে কোনও সময়ের চেয়ে বেশি দেশটির রপ্তানি
আসিফুজ্জামান পৃথিল: [৩]গত বছর যে কোনও প্রধান অর্থনীতির চেয়ে ভালো করেছে চীন। যুক্তরাষ্ট্রের আরোপিত বাণিজ্য যুদ্ধের পরেও চীনের যতটা ক্ষতির শঙ্কা ছিলো তার প্রায় কিছুই হয়নি। বিশ্বের ২য় বৃহত্তম অর্থনীতিটি বছর শেষ করেছে ডিসেম্বর মাসে ৭৮ বিলিয়ন ডলারের বাণিজ্য উদ্বৃত্ত নিয়ে। সিএনএন
[৪] বৃহস্পতিবার প্রকাশিত ডাটা বলছে, চীনের শেষ বছরে বাণিজ্য উদ্বৃত্ত হয়েছে রেকর্ড ৫৩৫ বিলিয়ন ডলার। যা ২০১৯ সালের চেয়ে ২৭ শতাংশ বেশি। রপ্তানিও ছিলো যে কোনও সময়ের চেয়ে বেশি।
[৫]ম্যাকুয়ারি ক্যাপিটালের চীন বিষয়ক প্রধান অর্থনীতিবিদ ল্যারি হু বলেন, ‘চীনকে কোনঠাঁসা ও বিশ্ব থেকে বিচ্ছিন্ন করার সব চেষ্টাই করা হয়েছে। চীন এই ভয়াবহ ধাক্কা কাটিয়ে উঠেছে নিজেদের স্টাইলে।
[৬]অক্সফোর্ড ইকোনমিক্স এর প্রধান লুইস কুইজস বলেছেন, চীনের অতিমহামারীর সফল ব্যবস্থাপনার কারণেই তারা এ সফলতা পেয়েছে। চীনের উহানে রোগটির উৎপত্তি হলেও তারা অন্য সব দেশের চেয়ে ভালোভাবে এর মোকাবেলা করতে পেরেছে। এ কারণেই রপ্তানিতে দেখা দিয়েছে প্রবৃদ্ধি। সম্পাদনা : মোহাম্মদ রকিব

 

[১]ক্যাপিটলে দাঙ্গাবাজরা বলছিলো, পুলিশকে তার নিজের বন্দুক দিয়ে হত্যা করো, জানালেন সেখানে দায়িত্বরতরা
আসিফুজ্জামান পৃথিল: [২]ডিসি মেট্রোপলিটন পুলিশ কর্মকর্তা মিচেল ফেনওয়ান দাঙ্গার দিন ইউএস ক্যাপিটল বিল্ডিংয়ের মেঝেতে শুয়ে ছিলেন। তিনি আহত অবস্থায় বুঝতে পারছিলেন, একদল দাঙ্গাবাজ তার কাপড় খুলে ফেলছে তারা তার গুলি নিয়ে নেয়, পুলিশ রেডিও খুলে ফেলে এমনকি ব্যাজ চুরি করে। সিএনএন [৩]ফেনওয়ানের ঘারের পেছনে টিজার দিয়ে বেশ কয়েকবার শক দেওয়া হয়। তিনি বেঁচে থাকবেন ভাবেননি। দুই দশক ধরে পুলিশে দায়িত্ব পালন করা ফেনওয়ান বলেন, ‘কয়েকজন আমার বন্দুক নেয়ার চেষ্টা করছিলো। তারা বলছিলো আমার বন্দুক দিয়েই আমাকে হত্যা করতে।’
[৪]সব মিলিয়ে ৪ জন পুলিশ কর্মকর্তা সিএনএন এর সঙ্গে কথা বলেছেন। কেন্দ্রীয় কর্মকর্তারা বলছেন, দাঙ্গার সব তথ্য বাইরে প্রকাশ করলে জনগণ অসুস্থ বোধ করবে। ভারপ্রাপ্ত মার্কিন অ্যাটর্নি মাইকেল শেরউইন বলেন, ‘আমি অনেক গল্প শুনেছি। গল্পগুলো শোনা যায় না।’
[৫]ফেনওয়ান একজন নারকোটিক বা মাদক গোয়েন্দা। তিনি সাধারণত সাদা পোশাকে কাজ করেন। সেদিন তিনি দাঙ্গা সামলাতে একটি নতুন ইউনিফর্ম পড়ে গিয়েছিলেন। তার সেই পোশাক পুরোটা ছিড়ে ফেলা হয়েছে।
[৬]ফেনওয়ান বলেছেন, সেদিন তিনি গুলি খেতে প্রস্তুত ছিলেন। তবে তাকে গুলি করা হয়নি, এটি পুরোটাই ভাগ্যের সহায়তা ছিলো বলে মনে করেন তিনি। সম্পাদনা : মোহাম্মদ রকিব

 

[১]শেষ দিনের মতো অফিস করলেন ট্রাম্প, পারমাণবিক চুল্লি তৈরির নিদের্শ দিলেন
রাশিদুল ইসলাম : [২] বিদায়ী মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প নতুন ধরনের এ পারমাণবিক চুল্লি তৈরির জন্যে এক নির্বাহি আদেশে স্বাক্ষর করেছেন। ২০৪০ সালের আগেই সহজে বহনযোগ্য এ পারমাণবিক চুল্লি চালু করা হবে। স্পুটনিক
[৩]ধারণা করা হচ্ছে, মার্কিন পারমাণবিক নীতিতে এ ‘স্মল মডুলার রিঅ্যাক্টর’ প্রকল্প দীর্ঘমেয়াদী প্রভাব ফেলবে। যুক্তরাষ্ট্রের রাজনৈতিক পরিস্থিতি ও ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ইমপিচমেন্ট আনাসহ বিভিন্ন কারণে পারমাণবিক চুল্লির বিষয়টি মিডিয়ার নজর এড়িয়ে গেছে। [৪] ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের জালানি নিরাপত্তা ও অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি নিশ্চিত করতে এ ধরনের ছোট ছোট পারমাণবিক চুল্লি তৈরির জন্যে একাধিক সরকারি সংস্থাকে একসঙ্গে কাজ করার নির্দেশ দেন। [৫] জ্বালানি চাহিদা মেটানো ছাড়াও যুক্তরাষ্ট্রে জাতীয় প্রতিরক্ষা ও মহাকাশ অভিযানও এ প্রকল্প বাস্তবায়নের মাধ্যমে আরো দক্ষতা অর্জন করবে। [৬] বিশেষ করে বেসরকারি খাতের উদ্ভাবন কাজে লাগিয়ে এ প্রকল্পের গবেষণা ও বিকাশ, উৎপাদন দক্ষতা, সুরক্ষা ও প্রযুক্তি আধিপত্য বজায় রাখতে সহায়ক হবে। [৭] ছোট আকারের পারমাণবিক চুল্লি তৈরির পরিকল্পনা চূড়ান্ত করতে পেন্টাগনকে ৬ মাসের সময় দেওয়া হয়েছে। ট্রাম্প দেশটির জ্বালানি বিভাগকে বাস্তবায়নাধীন পরিকল্পনা চূড়ান্ত করতে বলেছেন। যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য, পররাষ্ট্র, প্রতিরক্ষা ও জালানি মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা’কে একযোগে কাজ করার কথা বলা হয়েছে। সম্পাদনা : মোহাম্মদ রকিব




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]