• প্রচ্ছদ » » সব রাজনীতিতেই রাজনীতিবিদরা নাচের পুতুল, সুতো ক্যাপিটালিস্ট ক্লাসের হাতে!


সব রাজনীতিতেই রাজনীতিবিদরা নাচের পুতুল, সুতো ক্যাপিটালিস্ট ক্লাসের হাতে!

আমাদের নতুন সময় : 17/01/2021

বিপ্লব পাল : গত তিন সপ্তাহে দুটি বিধ্বংসী আগুনে ধ্বংস হয়েছে অনেক বাড়ি, পুড়েছে অনেক প্রাণ। চোখে আসেনি কোনো রাজনীতিবিদ বলছেন, কী রেগুলেশন আনতে হবে যাতে কলকাতা যতুগৃহ না হয়ে ওঠে? এই প্যান্ডেমিকে বৃদ্ধাদের কোনো সামান্য অসুখ হলেও ডাক্তার মিলবে না-যমরাজই গতি। কোন রাজনৈতিক দল, এই সমস্যাকে সামনে নিয়ে আসছে? নেতাজি, স্বামীজি, রবীন্দ্রনাথ, ক্ষুদিরাম তাদের লেগ্যাসি নিয়ে টানাটানি। তারা বাঙালিদের খাওয়াবে না পড়াবে? না আগুন থামাবে? না ডাক্তারের সমস্যার সমাধান দেবে? স্বামীজির জন্মদিনে অনেকেই লিখলেন। কিন্তু একবারও কেউ প্রশ্ন তুললেন না, গুজরাতিরা গান্ধী বা সর্দার প্যাটেলকে নিয়ে এই হ্যাংলামো করে না। কারণ তারা নিজেদের ধান্দায়, টাকা রোজগারে ব্যস্ত। আমেরিকাতে অধিকাংশ লোক জানে না জাতির পিতা জর্জ ওয়াশিংটন বা গণতন্ত্রের শ্রেষ্ঠ প্রেসিডেন্ট আব্রাহাম লিঙ্কনের জন্মদিন কবে বা এসব জন্মদিন পালন করতে হয়। কারণ সবাই টাকা কামানোর ধান্দায় ব্যস্ত। এসব লিখলেই বলবে, কারণ বাঙালি বুদ্ধিচর্চায় উন্নত। যা হাস্যকর। বাঙালি বুদ্ধিজীবীদের ইতিহাস দর্শনে যা দক্ষতা তাতে উন্নতবিশে^র স্কুলের ছেলেমেয়েদের হিউম্যানিটিজ সাবজেক্ট পড়ানোর মতো জ্ঞানটুকুও তাদের নেই। বাঙালি বুদ্ধিজীবীদের থেকে সার্কাসের জোকার হওয়া অনেক সম্মানের কাজ। তারা একবারও প্রশ্ন তোলেননি, এতো বুদ্ধিমান জাতিকে কেন বাংলা ছেড়ে বাংলার বাইরে কাজে যেতে হয়? বাঙালি রাজনীতির আসল ব্যাপারটাই বোঝে না। সব রাজনীতিতেই রাজনীতিবিদরা নাচের পুতুল, সুতো ক্যাপিটালিস্ট ক্লাসের হাতে। আর বাঙালির ক্যাপিটাল, অবাঙালিদের হাতে। সুতরাং বাংলার রাজনীতি আপনি চান বা না চান, অলরেডি অবাঙালি ব্যবসায়ীদের সুতোই বহুদিন থেকেই। হ্যাঁ, স্বাধীনতার আগে থেকেই। রবীন্দ্রনাথের শান্তিনিকেতন, থেকে বিবেকানন্দের রামকৃষ্ণ মিশন জন্মলগ্ন থেকেই মারোয়ারীদের অনেক দান দাক্ষিন্য পেয়ে এসেছে। এগুলো হচ্ছে অদৃশ্য সুতো। বাঙালির সামনে নেতাজি, স্বামীজি ইত্যাদি গাজর ঝোলানো হয় শ্রেফ যাতে আরও বেশি বাঙালি ছেলে-মেয়ে আদর্শবাদের ভাববাদের পাকে ডুবে, পুঁজির এই অদৃশ্য সুতোটা না দেখতে পায়। কারণ যেদিন বাঙালি যুবকরা এই পুজির সঙ্গে রাজনীতির সম্পর্কটা বুঝতে পারবে-সেদিন তারা পলিটিশিয়ানদের লেজুর না থেকে নিজের ব্যবসা, নিজের জমিতে মন দেবে। তাতে বর্তমান বাঙালি পলিটিক্যাল ক্লাস, যাদের আসল মালিক অবাঙালি ব্যবসাদার, তাদের বিশেষ অসুবিধা। এই আদর্শবাদের আফিঙে ভুলিয়ে কলকাতায় অবাঙালি ব্যবসায়ীরা বাঙালিদের যে লুটপাট করে, তা ভারতের অন্যকোনো রাজ্যে সম্ভব না। বাংলায় সম্ভব কারণ এখানে যুব স¤প্রদায়কে আদর্শবাদের আফিম বাম ডান সব সমান খাইয়ে কুম্ভকর্নের ঘুমে পাঠানো হয়েছে। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]