• প্রচ্ছদ » শেষ পাতা » [১]অতীত ইতিহাস বলছে, আগের প্রেসিডেন্টদের চেয়ে ট্রাম্প খুব একটা খারাপ না, গার্ডিয়ানকে বললেন রাষ্ট্রবিজ্ঞানী মোহাম্মদ হানিফ


[১]অতীত ইতিহাস বলছে, আগের প্রেসিডেন্টদের চেয়ে ট্রাম্প খুব একটা খারাপ না, গার্ডিয়ানকে বললেন রাষ্ট্রবিজ্ঞানী মোহাম্মদ হানিফ

আমাদের নতুন সময় : 20/01/2021

দেবদুলাল মুন্না: [২] দ্য গার্ডিয়ান পত্রিকা একটি তুলনামূলক জরিপ ও বিশ্লেষণ সম্প্রতি তুলে ধরেছে। সেখানে এ রাষ্ট্রবিজ্ঞানী কয়েকটি উদাহরণ দেন।[৩] মোহাম্মদ হানিফ প্রথমেই বলেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট নিক্সনের কথা। ওয়াটারগেট কেলেঙ্কারির পর তাকে গদি থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছিলো। তিনি প্রেসিডেন্ট থাকা অবস্থায় ১৯৭১ সালে বাংলাদেশিদের ওপর গণহত্যা চালানো হয়। নিক্সন এই গণহত্যা বন্ধ করতে কোনো ভূমিকা রাখেননি।[৪] জিমি কার্টারের সময় পাকিস্তানে সামরিক একনায়ক জিয়াউল হক নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী জুলফিকার আলী ভুট্টোকে বিচারের নামে প্রহসন করে ফাঁসি দেন। [৫] রিগ্যান আফগানিস্তানে শরণার্থী শিবিরের জন্ম দেন। তিনিই চিলির পিনোশেকে দেউলিয়া করে ছেড়েছিলেন।
[৬] জর্জ বুশ সিনিয়র গদিতে বসেই তার ক্ষেপণাস্ত্র ও যুদ্ধবিমানের গোলা তারাবাজির মতো ছুঁড়েছিলেন বাগদাদে। [৭] বিল ক্লিনটন যখন মনিকা লিউনস্কির শ্লীলতাহানির জন্য অভিশংসনের মুখে পড়েন, তখন গণমাধ্যমের দৃষ্টি ঘোরানোর জন্য আফগানিস্তান ও সুদানে ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছিলেন।[৮] আমেরিকানরা নিশ্চিতভাবেই জর্জ বুশকে ভালোবেসেছিলেন, না হলে তারা তাকে দুবার প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত করতেন না। বুশ বিশ্বাস করতেন, যুদ্ধই আমেরিকান প্রেসিডেন্টের প্রধান কাজ। ইরাক ও আফগানিস্তানকে তিনি তছনছ করেছেন। গুয়ানতানামো ও আবু গারিব কারাগারের মতো নিপীড়নখানা তিনিই চালু করেছিলেন।
[৯] ওবামা আমেরিকানদের সবচেয়ে প্রিয় প্রেসিডেন্টদের একজন। তিনি বুশের মতো হত্যার দায় না নিয়ে লিবিয়ায় মানুষ হত্যার দায়িত্ব অ্যালগরিদম ও ড্রোনের ওপর ছেড়ে দিয়েছিলেন। নোবেল শান্তিজয়ী ওবামার শাসনামলের শেষ দিকে মার্কিন ড্রোন থেকে ঘণ্টায় তিনটি করে বোমা লিবিয়া, আফগানিস্তান ও অন্যান্য স্থানে পড়ত। সম্পাদনা: সালেহ্ বিপ্লব




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]