• প্রচ্ছদ » Uncategorized » এক ডোজ ভ্যাকসিন পাবার পরই যে মাস্ক টাস্ক ছুঁড়ে ফেলে দিয়ে ফুরফুরা মেজাজে কানে বাতাস লাগিয়ে ঘুরে বেড়াবেন – তা ঠিক হবে না


এক ডোজ ভ্যাকসিন পাবার পরই যে মাস্ক টাস্ক ছুঁড়ে ফেলে দিয়ে ফুরফুরা মেজাজে কানে বাতাস লাগিয়ে ঘুরে বেড়াবেন – তা ঠিক হবে না

আমাদের নতুন সময় : 31/01/2021

রুমি আহমেদ : ভ্যাকসিন নিয়ে আরোকিছু কথা বলা দরকার। এই মুহূর্তে বাংলাদেশে যেই ভ্যাকসিন টা পাওয়া যাচ্ছে-তা হচ্ছে অক্সফোর্ড, এস্ট্রাজেনেকার অতউ ১২২২ ভ্যাকসিন। এই ভ্যাকসিন টা নিরাপদ-বেশকিছু বড় বড় ট্রায়াল এ তা প্রমাণ হয়েছে। কিন্তু মনে রাখতে হবে যে লেটেস্ট যে ডাটা আমরা পেয়েছি ব্রিটিশ স্টাডি থেকে – তা অনুযায়ী এই ভ্যাকসিন টা ৬২ শতাংশ এফেকটিভ। মানে হচ্ছে এই ভ্যাকসিন নিলে আপনার কোভিড হওয়ার সম্ভাবনা ৬২ কমে যাবে। বয়স্কদের ক্ষেত্রে এই ভ্যাকসিনটার এফেক্টিভনেস হয়তো আরও কম। আমেরিকার ট্রায়াল শেষ হওয়ার পর এ ব্যাপারে আমরা ক্লিয়ার করে জানতে পারব। এই এফেক্টিভনেস এর প্রশ্নে -বিশেষ করে বয়স্কদের ক্ষেত্রে – এই ভ্যাকসিন টা এখনো যুক্তরাষ্ট্র ও ইইউ তে এপ্রোভ হয়নি।তবে যতোদূর আমরা জানি মন রাখবেন নাম্বার টা ৬২ শতাংশ – এটা ১০০শতাংশ না – মানে এই ভ্যাকসিন নেওয়ার পর ও কোভিড হওয়ার সম্ভাবনা থেকে যাবে। আর ভ্যাকসিন টা পুরোপুরি এফেকটিভ হয় দ্বিতীয় ডোজের দশ দিন পর। সুতরাং এক ডোজ ভ্যাকসিন পাবার পরই যে মাস্ক টাস্ক ছুড়ে ফেলে দিয়ে ফুরফুরা মেজাজে কানে বাতাস লাগিয়ে ঘুরে বেড়াবেন – তা ঠিক হবে না। আরব আমিরাত এও অনেকে ভ্যাকসিন নিচ্ছেন – খুব অল্প কিছু ফাইজার ভ্যাকসিন বাদে অনেক ভ্যাকসিন সাপ্লাই এর ৯৫ শতাংশ চীনের সাইনভ্যাক ভ্যাকসিন। এটার কার্যকারিতা ৮০ শতাংশ এর কাছাকাছি। তাদের কিছু ভ্যাকসিন রাশিয়ার স্পুটনিক ভ্যাকসিন – ওটার কার্যকারিতা আরও কম। এই কথাগুলো বলছি এই কারণে যে- এক ডোজ ভ্যাকসিন পাওয়ার পরই নিজেকে ইনভিন্সিবল ভাবার কোনো কারণ নেই। দু ডোজ ভ্যাকসিন নেওয়ার পর ও আপনার কোভিড ইনফেকশন হতে পারে-তবে ইনফেকশন টা মাইল্ড হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। কিন্তু আপনি অন্যান্য আনভ্যাকসিনেটেড মানুষকে (বিশেষ করে বাড়ির লোকজন কে) ইনফেক্ট করতে পারেন। আপনার কোভিড হয়তো থাকলেও ভ্যাকসিন নিন। প্রথম ডোজ নেওয়ার পর কোভিড-১৯ হলেও সেকেন্ড ডোজ বন্ধ করবেন না। আর এমন কোনো অসুখ বিসুখ নেই যার কারণে কোভিড ভ্যাকসিন নেওয়া যাবে না। ১৮ বছরের উপরে সবাই নিতে পারবেন। গর্ভবতী মহিলারাও নিতে পারবেন- ল্যাকেটটিং ব্রেস্টফিডিং মা রাও নিতে পারবেন।দুটো কথা বলে শেষ করি – এখন ভ্যাকসিন এর কার্যকারিতা নিয়ে বাছবিচার করার সময় নেই। ৬০ শতাংশ কার্যকারিতা ০ শতাংশ ইমিউনিটি চেয়ে অনেক অনেক বেশি। যেই ভ্যাকসিন ই পাবেন-নিয়ে নিন। আর ভ্যাকসিন পেলেই মাস্ক টাস্ক ছুড়ে ফেলে দিয়ে গেøারিয়া জিন্স এ আড্ডাবাজি শুরু করে দেওয়াও ঠিক হবে না। মাস্ক ও ফিজিক্যাল ডিসট্যান্স মেনে চলতে হবে – ভ্যাকসিন পান আর না পান। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]