• প্রচ্ছদ » শেষ পাতা » [১]স্থানীয়রা মনে করেন, গোপন নিউক্লিয়ার ডিভাইসের কারণেই ভারতের হিমালয়ে বন্যা হয়েছে [২]বিজ্ঞানীরা বলছেন, দুর্ঘটনার কারণ ভেঙে পড়া হিমবাহ, পারমাণবিক অস্ত্রের ধারণা স্নায়ুযুদ্ধের হ্যাঙওভার


[১]স্থানীয়রা মনে করেন, গোপন নিউক্লিয়ার ডিভাইসের কারণেই ভারতের হিমালয়ে বন্যা হয়েছে [২]বিজ্ঞানীরা বলছেন, দুর্ঘটনার কারণ ভেঙে পড়া হিমবাহ, পারমাণবিক অস্ত্রের ধারণা স্নায়ুযুদ্ধের হ্যাঙওভার

আমাদের নতুন সময় : 22/02/2021

আসিফুজ্জামান পৃথিল: [৩] ভারতীয় হিমালয়ের একটি গ্রামে, কয়েক প্রজন্মের বাসিন্দারা বিশ্বাস করে এসেছেন, তুষার এবং পাথরের মাঝে একটি পারমাণবিক যন্ত্র লুকানো আছে। ফেব্রুয়ারির শুরুতে হিমবাহ ভাঙা বরফ থেকে সৃষ্ট বড় বন্যা যখন রাইনি গ্রামকে আঘাত করে, গ্রামবাসীরা বিশ্বাস করতে শুরু করেন, ডিভাইসটি ফেটে গেছে। এই বন্যায় ৫০ এর বেশি মানুষ মারা গেছেন। বিবিসি
[৪] রাইনি গ্রামের প্রধান সংগ্রাম সিং রাওয়াত বলেন, ‘আমরা মনে করি, এই ঘটনায় লুকানো ডিভাইসটির ভুমিকা আছে। [৫] এই এলাকায় ছড়িয়ে পড়া গুজব হলো- উঁচু এলাকায় বিশ্বসেরা পর্বতারোহীরা এসপানিওয়াজের সঙ্গে যুক্ত। তারা ইলেক্ট্রনিক স্পাই সিস্টেমের অংশ হিসেবে তেজস্ক্রীয় বস্তু রোপন করে গেছেন। এই গুজবের জন্ম হয় ১৯৬০ সালে। সেসময় বলা হচ্ছিলো যুক্তরাষ্ট্র ও ভারত চীনের পরমাণু ও মিসাইল পরীক্ষার জন্য পুরো হিমালয় জুড়ে নিউক্লিয়ার স্পাই ডিভাইস স্থাপন করে রেখেছে। [৬] যুক্তরাষ্ট্রের রক অ্যান্ড আইস ম্যাগাজিনের কনট্রিবিউটিং এডিটর পেটে তাকেদা বলেন, ‘এটি স্নায়ু যুদ্ধের প্যারানয়া। এই ধরণের বহু গল্প এখনও প্রচলিত আছে।’ তবে ইতিহাসবিদরা বলেন, গ্রামবাসীরা খুব বেশি ভুল নন। এই ধরণের ঘটনা আসলেই ঘটেছিলো। ১৯৬৫ সালে ৭টি প্লুটোনিয়াম ক্যাপসুল নিয়ে ভারত-যুক্তরাষ্ট্রের একটি যৌথদল নান্দাদেবীতে আরোহনের চেষ্টা করে। তাদের কাছে ৫৭ কেজি সার্ভিলেন্স উপকরণ ছিলো। তারা চুড়ায় উঠতে পারেননি। ৭ হাজার ৮১৬ মিটার উঁচুতে একটি প্ল্যাটফর্মের উপর এগুলো রেখে আসেন। মজার বিষয় হলো- সর্বশেষ হিমবাহটি ভেঙে পড়েছে নান্দাদেবী থেকেই। সম্পাদনা : মোহাম্মদ রকিব




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]