• প্রচ্ছদ » আমাদের বাংলাদেশ » [১]করোনা টিকার দুই ডোজের ব্যবধান ৩ মাস হলে কার্যকারিতা ৭৬% [২]দেড় মাসের ব্যবধানে ৬৫ এবং এক মাসের ব্যবধানে ৫৫ শতাংশ


[১]করোনা টিকার দুই ডোজের ব্যবধান ৩ মাস হলে কার্যকারিতা ৭৬% [২]দেড় মাসের ব্যবধানে ৬৫ এবং এক মাসের ব্যবধানে ৫৫ শতাংশ

আমাদের নতুন সময় : 23/02/2021

শিমুল মাহমুদ: [৩] চিকিৎসা বিজ্ঞানের আন্তর্জাতিক জার্নাল ‘দ্য ল্যানসেট’ এ প্রকাশিত এক গবেষণাপত্রে বলা হয়েছে, অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ভ্যাকসিনটি প্রথম ডোজ প্রয়োগের পর তিন মাস পর্যন্ত ৭৬ শতাংশ নিরাপত্তা দিতে পারে। তাই অনায়াসেই ২টি ডোজের মধ্যে সময়ের ব্যবধান বাড়ানো যায়। তাতে টিকার কার্যকারিতাও বেড়ে যায়। রয়টার্স
[৪] যুক্তরাজ্যের শেফিল্ড ইউনিভার্সিটির সিনিয়র রিসার্চ অ্যাসোসিয়েটস ড. খোন্দকার মেহেদী আকরাম বলেন, তৃতীয় ধাপের ট্রায়ালে দেখা গেছে, প্রথম ডোজের ছয় সপ্তাহের চেয়ে কম সময় অন্তর দ্বিতীয় ডোজ দিলে কার্যকারিতা হয় ৫৩ শতাংশ। আর দ্বিতীয় ডোজটি ছয় সপ্তাহ পরে দিলে কার্যকারিতা হয় ৬৫ শতাংশ। কিন্তু দ্বিতীয় ডোজটি যদি দেওয়া হয় ১২ সপ্তাহের ব্যবধানে, তাহলে কার্যকারিতা বেড়ে দাঁড়ায় ৮৩ শতাংশে। অর্থাৎ প্রথম ডোজের চার সপ্তাহ পর দ্বিতীয় ডোজ দিলে ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা মূলত কমে যায় শতকরা ৩০ ভাগ।
[৫] তিনি বলেন, অন্যদিকে শুধুমাত্র একটি ডোজ দেয়ার ২১ দিন পর থেকেই ভ্যাকসিনটির কার্যকারীতা ৭৬ শতাংশ যা ৩ মাস পর্যন্ত বলবৎ থাকে। এসব বিচারে যুক্তরাজ্যে ভ্যাকসিনটির দ্বিতীয় ডোজ দেয়া হচ্ছে ১২ সপ্তাহ পরে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার রিকমেন্ডেশন হচ্ছে দ্বিতীয় ডোজ ৮-১২ সপ্তাহে। সম্পাদনা: সালেহ্ বিপ্লব




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]