• প্রচ্ছদ » প্রথম পাতা » [১]স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণে বাংলাদেশের পক্ষে চূড়ান্ত সুপারিশ করতে যাচ্ছে জাতিসংঘ [২]পূর্ণ মর্যাদা পেতে লাগবে ৩ থেকে ৫ বছর [৩]আজ ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলন করে ঘোষণা দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা


[১]স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণে বাংলাদেশের পক্ষে চূড়ান্ত সুপারিশ করতে যাচ্ছে জাতিসংঘ [২]পূর্ণ মর্যাদা পেতে লাগবে ৩ থেকে ৫ বছর [৩]আজ ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলন করে ঘোষণা দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

আমাদের নতুন সময় : 27/02/2021

সালেহ বিপ্লব, আসিফুজ্জামান পৃথিল, আখিরুজ্জামান সোহান: [৪] শুক্রবার বাংলাদেশ সময় মধ্যরাতে জাতিসংঘের সেন্টার ফর ডেভলপমেন্ট পলিসির (সিডিসি) পর্যালোচনা সভা শেষে এই সিদ্ধান্ত জানানোর কথা ছিলো। [৫] ১৯৭৫ সালে স্বল্পোন্নত দেশের তকমা পায় বাংলাদেশ। সেখান থেকে উত্তীর্ণ হতে ৩টি ক্যাটাগরিতে নির্দিষ্ট মান অর্জন করতে হয়। এগুলো হলো মাথাপিছু মোট জাতীয় আয়, মানব সম্পদ সূচক এবং অর্থনৈতিক ভঙ্গুরতা সূচক। ৩টি ক্যাটাগরিতেই প্রয়োজনীয় মান আছে বাংলাদেশের। [৬] ২০১৮ সালে সিডিপির মূল্যায়ন অনুযায়ী বাংলাদেশের মাথাপিছু জাতীয় আয় ১ হাজার ২৭৪ ডলার। উত্তীর্ণ হতে প্রয়োজন ১ হাজার ২৩০ ডলার। মানব সম্পদ সূচকে প্রয়োজনীয় স্কোর ৬৬ বা তার বেশি। বাংলাদেশের স্কোর ৭৩.৩। যা উন্নত দেশের কাছাকাছি। এই সূচকের ৫ উপাদান ৫ বছরের নিচে মৃত্যুহার, অপুষ্টিতে থাকা জনসংখ্যা, মাতৃমৃত্যু, উচ্চবিদ্যালয়ে ভর্তির হার ও প্রাপ্তবয়স্কদের শিক্ষার হারে খুবই ভালো করছে বাংলাদেশ। আর অর্থনৈতিক ভঙ্গুরতা সূচকে ৩২ এর নিচে স্কোর হলেই উন্নয়নশীল দেশের কাতারে চলে যাওয়া যায়। বাংলাদেশের স্কোর মাত্র ২৫.২। ৩ বছর পরপর মূল্যায়ন করা হয়। পরপর দুবার এসব মান অর্জন করতে পারলেই গ্র্যাজুয়েশন বা উত্তরণের সুপারিশ করা হয়। [৭] ১৫ জানুয়ারি সিডিপির সঙ্গে বৈঠকে বাংলাদেশ আরও দুই বছর সময় চেয়েছে। সিডিপি বাংলাদেশের সেই অনুরোধ রেখে সুপারিশ করলে ২০২৬ সালে চূড়ান্ত স্বীকৃতি মিলবে। ওই বছর জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে এই চূড়ান্ত স্বীকৃতি দেওয়া হবে। সম্পাদনা : মোহাম্মদ রকিব




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]