• প্রচ্ছদ » » আল-জাজিরার মিথ্যাচার, দেশ-বিদেশি ষড়যন্ত্রকারী এবং আমাদের সতর্কতা


আল-জাজিরার মিথ্যাচার, দেশ-বিদেশি ষড়যন্ত্রকারী এবং আমাদের সতর্কতা

আমাদের নতুন সময় : 01/03/2021

রবিউল আলম : দুনিয়ায় আনিস, হারিস, জোশেফরাই দÐ মওকুফ পেয়েছে তা নয়, দÐ মওকুফ পেয়েছে মহাত্মা গান্ধী-ইন্দিরা গান্ধীর খুনিরাও। মোস্তফা ও মোরশেদ হত্যার প্রকাশ্য আসামি ছিলেন না আনিস, হারিস। মোরশেদ হত্যা হয়েছিল কোর্টে। তৎকালীন সময়ে রাজনৈতিক প্রতিহিংসা থেকে, প্রশাসনের অসহযোগিতা জোশেফকে আসামি হতে হয়েছে। সত্য প্রমাণের অভাবে, প্রকৃত সাক্ষী হাজির করা যায়নি, রাজনৈতিক কারণে। আদালতে আসামি পক্ষের সাক্ষীর অভাব ছিলো। বাদি পক্ষের মিথ্যে সাক্ষী ছিলো সাজানো। ফলে মুজিব আদর্শে বিশ্বাসী ছাত্রনেতা জোশেফ, হারিস, আনিসদের সাজা থেকে বাঁচানো যায়নি। ন্যায়সংগত বিচার পাওয়ার জন্য প্রতি পদে পদে বাধা ছিলো। মোস্তফাকে ব্যবসায়ী, মোরশেদকে ছাত্র বলে আল-জাজিরাসহ কুচক্রী মিডিয়া পরিচয় জাহির করছেন। এই তথাকথিত খুন হওয়ারা কতো বড় সন্ত্রাসী ছিলো, মোহাম্মদপুরে দীর্ঘদিন রাজনীতির সাথে যুক্ত না থাকলে কল্পকাহিনি মনে হতো। সত্য বলেই বিশ্বাস করতে হতো।
হারিস-যোশেফের অপ্রতিরোধ্য রাজনীতিকে মোকাবেলা করতে না পেরে আমার মনে হয় নিজ দলের লোক হত্যা করেই মিথ্যে মামলার আসামি করা হয়, সত্যও হতে পারে। পৃথিবীতে এমন ঘটনা শুধু আহমেদ পরিবারেই ঘটেনি। বড় বড় দেশপ্রেমি পাকিস্তান ও ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলনের ঘটেছে খুদিরাম, কর্নেল তাহেরসহ অনেককেই ফাঁসি নিতে হয়েছে। পৃথিবীর সব দেশেই সাধারণ ক্ষমার অধীনে সংশোধন হওয়ার সুযোগ দেওয়া হয়। এই সরকার আহমেদ পরিবারকে দয়া করেছে বলে আমি মনে করি না। ২০ বছর কারভোগের পর সাধারণ ক্ষমা তাদের অধিকারে মধ্যে পরে বলেই আমি মনে করি। আল-জাজিরা কী জানে না দÐ মওকুফের বিষয়? আল-জাজিরাকে জবাবদিহিতায় আনার জন্য যথেষ্ট, প্রতিবেদন উদ্দেশ্য প্রণিত। দেশে দেশে আল-জাজিরা বিভ্রান্ত ছড়ানোর বাহক বলে অনেকবার চিহ্নিত হয়েছে, নিষিদ্ধ হয়েছে, মিথ্যবাদি মিডিয়ার স্বীকৃতি পেয়েছে। আল-জাজিরার চেয়ে বড় মিথ্যেবাদি মিডিয়া এই পৃথিবীতে আবিষ্কার করা কঠিন হবে!। মুজিব জন্মশতবার্ষিকীতে আল-জাজিরা এই মিথ্যে প্রতিবেদন প্রকাশ করে বাংলাদেশকে অনেক বড় ক্ষতির হাত থেকে সতর্ক করেছে। আমরা আরও সতর্ক হয়েছি। লেখক : মহাসচিব, বাংলাদেশ মাংস ব্যবসায়ী সমিতি




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]