• প্রচ্ছদ » » দেশের ইতিহাসে ভাষা, শব্দ, কাপড় চোপড় চুল দেখে দেখে আন্দোলনের শুদ্ধবাদিতা কখনোই ছিলো না


দেশের ইতিহাসে ভাষা, শব্দ, কাপড় চোপড় চুল দেখে দেখে আন্দোলনের শুদ্ধবাদিতা কখনোই ছিলো না

আমাদের নতুন সময় : 02/03/2021

আরিফ জেবতিক : মূলধারার পত্রিকায় বø্যাক আউট হয়ে যাওয়ায় আওয়ামী লীগ নিজেরাই পত্রিকা বের করার সিদ্ধান্ত নিলো। তাই ভাষা আন্দোলনের পরের বছর বের হলো আওয়ামী লীগের মুখপত্র, ‘ইত্তেফাক’। নামের মাঝে বাংলা নেই বলে কেউ কিন্তু তেড়েফুড়ে এলো না। ২৫ মার্চের ভয়াল রাতে বংশালে প্রথম ‘অবৈধ অস্ত্র’ হাতে যিনি পাকিস্তান আর্মির বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়েছিলেন, তাঁর নাম ছিল ‘নাদের গুন্ডা।’ কেউ বলেনি যে যুদ্ধে একটা গুন্ডা যোগ দিয়েছে, সেই যুদ্ধে যাব না। এই যুদ্ধ সহীহ যুদ্ধ নয়। আর এই তো সেদিন, নূর হোসেন বুকের মাঝে ‘স্বৈরাচার নীপাত যাক’ লিখে শহীদ হয়ে গেলেন। নিপাত শব্দটির বানান যে ভুল সেটা নিয়ে কারো আহাজারি দেখলাম না। বিশে^র অন্য ইতিহাস জানি না, আমার দেশের ইতিহাসে ভাষা, শব্দ, কাপড়চোপড়, চুল এসব দেখে দেখে আন্দোলনের শুদ্ধবাদিতা কখনোই ছিল না। ইদানীং দেখি আন্দোলনের শুদ্ধবাদিতার পুলিশ নিযুক্ত হয়েছে ফেসবুকে। কে কোন শব্দে ব্যানার লিখবে, কোন রঙের ধুতি লুঙি পরে বক্তৃতা করবে, সামনে বসে কে বক্তৃতা শুনলে সেই আন্দোলনের সতীত্ব নষ্ট হয়ে যাবে-এসব বিষয়ে জাজমেন্টাল বক্তব্য চলে আসে। আর তেমন বক্তব্য আসার সাথে সাথেই আন্দোলনকারীরা সেটাকে ডিফেন্ড করতে শুরু করে। হুমায়ুন আজাদ বলেছিলেন, ‘বাঙালি আন্দোলন করে, সাধারণত ব্যর্থ হয়, কখনো কখনো সফল হয় এবং সফল হওয়ার পর মনে থাকে না কেন তারা আন্দোলন করেছিলো।’ এখন ফেসবুকের জাজদের খুশি করতে গিয়ে আন্দোলন শুরুর আগেই পাবলিকের মনে থাকে না কেন তারা আন্দোলন শুরু করেছিল। সবাই ফেসবুকের গলিঘুপচিতে খেই হারিয়ে ফেলে। অদ্ভুত! ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]