• প্রচ্ছদ » আমাদের বিশ্ব » ফ্রান্সের কয়েকটি মুসলিম সংগঠন অ্যান্টি এক্সট্রিমিস্ট বিল পাশ না করার দাবি জানাচ্ছে, তারা বলছে, এটি বিচ্ছিন্নতাবাদী ও বর্ণবাদী আইন


ফ্রান্সের কয়েকটি মুসলিম সংগঠন অ্যান্টি এক্সট্রিমিস্ট বিল পাশ না করার দাবি জানাচ্ছে, তারা বলছে, এটি বিচ্ছিন্নতাবাদী ও বর্ণবাদী আইন

আমাদের নতুন সময় : 06/03/2021

রাশিদ রিয়াজ : ফ্রান্সের মুসলমানরা ক্রমশঃ উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন। প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোর কাছে তারা অ্যান্টি-এক্সট্রিমিস্ট বিল পাশ না করার দাবি জানিয়ে আসছিলো। কিন্তু ম্যাক্রোঁ তা নাকচ করে দেন। ফ্রান্সের মুসলমানরা মনে করছেন এ বিল পাশের মধ্য দিয়ে তাদের ধর্মীয় স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করা হচ্ছে। এজন্যে তারা ফ্রান্সব্যাপী বিক্ষোভ-প্রতিবাদের আহŸান জানিয়েছেন। গত ফেব্রæয়ারিতে বিলটি অনুমোদন দেয় ফ্রান্স সরকার। এ বিলের আওতায় মসজিদ, স্কুল, স্পোর্টস ক্লাবগুলোতে যাতে উগ্র ইসলামপন্থীরা ঢুকে পড়তে না পারে সেজন্যে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। ফরাসী মূল্যবোধ মেনে চলার কথাও বলা হয়েছে। ফ্রান্সের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জেরাল্ড ডারমানিন এ বিলকে অত্যন্ত শক্তিশালী ধর্মনিরপেক্ষ অস্ত্র হিসেবেও অভিহিত করেন।
আগামী ২১ মার্চ ফ্রান্সের সর্বত্র তারা এ বিলের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদের আহŸান জানিয়েছেন। এক বিবৃতিতে জোটটির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, এই বিলের মাধ্যমে ফ্রান্স সরকার অপ্রাসঙ্গিকভাবে প্রতিটি মুসলমানকে দোষী বিবেচনা করছে যা তাদের বিক্ষুব্ধ করে তুলেছে এবং এরফলে ফ্রান্স সন্ত্রাসবাদকেই কার্যকর করে তুলছে যার শিকার হবে মুসলমানরা। এই বিল মুসলমানদের ধর্মীয় আবেগকে সমূলে আঘাত হানছে এবং তাদের শত্রæ বিবেচনা করে তুলছে। গ্রæপটির পক্ষ থেকে আরও বলা হয়, ফ্রান্সে মুসলমানরা স্বাস্থ্য সামাজিক ও অর্থনৈতিক ও পরিবেশগত সংকট মোকাবেলা করছে এবং এ ধরনের জরুরি অবস্থায় ইসলাম ও মুসলমানদের বিতর্কের চারণভূমিতে ফেলে দেওয়া হয়েছে। বিলটি পাশ করে যে কারণে আমরা তা অস্বীকার করি। এ বিল নিয়ে অন্তত ফ্রান্সের আগামী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগ পর্যন্ত বিতর্ক জরুরি ছিলো। ফ্রন্টের পক্ষ থেকে তাদের কর্মসূচি নিয়ে ফ্রান্স সরকারকে ভয় না পাওয়ার আহŸান জানিয়ে বলা হয় এ কর্মসূচি আসলে আমাদের অধিকার আদায়ের, মর্যাদা ও স্বাধীনতা রক্ষার।
সম্পাদনা : মোহাম্মদ রকিব




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]