• প্রচ্ছদ » প্রথম পাতা » [১]সেরামের কাছে বাংলাদেশের জন্য ভ্যাকসিন সংরক্ষিত আছে, ভারত সরকারের সাম্প্রতিক নিষেধাজ্ঞার কারণে সরবরাহে বিলম্ব


[১]সেরামের কাছে বাংলাদেশের জন্য ভ্যাকসিন সংরক্ষিত আছে, ভারত সরকারের সাম্প্রতিক নিষেধাজ্ঞার কারণে সরবরাহে বিলম্ব

আমাদের নতুন সময় : 06/04/2021

শিমুল মাহমুদ: [২] ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটের সঙ্গে চুক্তির মাধ্যমে বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের টিকা সরবরাহ করছে ওষুধ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস। প্রতিষ্ঠানটির একটি সূত্র জানায়, আগামী চার থেকে পাঁচ দিনের মধ্যে তারা নিশ্চিত হবেন কবে নাগাদ টিকার তৃতীয় চালান আসবে। একই সঙ্গে কোভ্যাক্সের দেওয়া ভ্যাকসিন কতোখানি পাওয়া যাবে সেটাও জানা সম্ভব হবে। [৩] বেক্সিমকোর চেয়ারম্যান সালমান এফ রহমান সাংবাদিকদের বলেন, আশা করছি এই সপ্তাহের মধ্যেই ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে আমরা ভ্যাকসিনের আরেকটি চালান পাবো। এখনও পরিমাণ নির্ধারণ হয়নি। তবে প্রথম ডোজ দেওয়ার পাশাপাশি যেনো দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া অব্যাহত রাখতে পারি, সে পরিমাণ ভ্যাকসিন পাওয়া যাবে। [৪] বাংলাদেশের কৌশল হচ্ছে, যে কোনোভাবে প্রয়োজন মেটানো। সেক্ষেত্রে কোভ্যাক্স হোক বা কেনা ভ্যাকসিন আসুক। সরবরাহ ও টিকা কার্যক্রম যেনো ব্যাহত না হয়। [৫] সেরামের টিকা রপ্তানি বিষয়ে ভারত সরকার যে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে তা বাংলাদেশের জন্য শিথিল থাকবে বলেও জানায় সূত্রটি। তবে কর্তৃপক্ষীয় সূত্র থেকে বিষয়টি নিশ্চিত করা যায়নি। নরেন্দ্র মোদির সাম্প্রতিক বাংলাদেশ সফরের আগে ভারতীয় এই নিষেধাজ্ঞা জারী করা হয়। [৬] এদিকে সেরামের তৈরি ভ্যাকসিনের নতুন ব্যাচের আমদানি ও জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন দিয়েছে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর। অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক ও মুখপাত্র মো. আইয়ুব হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেন। [৭] গত ছয় মাসের মধ্যে সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে কেনা টিকা এসেছে ৭০ লাখ। এর বাইরে ভারত সরকার উপহার দিয়েছে ৩২ লাখ ডোজ। এ পর্যন্ত মোট টিকা নিয়েছেন ৫৫ লাখ মানুষ। ৭০ লাখ নিবন্ধনকারীর মধ্যে অপেক্ষায় আছেন আরও ১৫ লাখ। সরকারে হাতে টিকা রয়েছে মাত্র ৪৭ লাখ। সম্পাদনা : মোহাম্মদ রকিব




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]