প্রকাশিত: Wed, Jan 11, 2023 7:26 AM
আপডেট: Wed, Feb 8, 2023 3:38 AM

চলচ্চিত্র পরিচালক চাষী নজরুল ইসলামের প্রয়াণ দিবস, তিনিই প্রথম নির্মাণ করেন মুক্তিযুদ্ধভিক্তিক চলচ্চিত্র ‘ওরা ১১ জন’

মারুফ হাসান : [১] চাষী নজরুল ইসলাম বাংলাদেশের একজন চলচ্চিত্র পরিচালক ছিলেন। তিনি ১৯৬১ সালে তখনকার খ্যাতিমান পরিচালক ফতেহ লোহানীর সঙ্গে ‘আসিয়া’ চলচ্চিত্রে সহকারী পরিচালক হিসেবে কাজ শুরু করেন। এরপর ১৯৭১ সালের স্বাধীনতা যুদ্ধের পর তিনিই প্রথম নির্মাণ করেন মুক্তিযুদ্ধভিক্তিক চলচ্চিত্র ‘ওরা ১১ জন’। এই চলচ্চিত্রটি ১৯৭২ সালে মুক্তি পাওয়ার মাধ্যমে পরিচালক হিসেবে চাষী নজরুলের আত্মপ্রকাশ ঘটে। [২] চাষী নজরুল ১৯৪১ সালের ২৩ অক্টোবর বিক্রমপুরের শ্রীনগর থানার সমষপুর গ্রামে জন্মগ্রহন করেন। তাঁর বাবা মোসলেহ উদ্দিন আহম্মদ ছিলেন ভারতের ‘ঝাড়খণ্ডের টাটা আয়রন এন্ড স্টীল কোম্পানি’র ইঞ্জিনিয়ার। জানা যায়, শেরেবাংলা এ. কে. ফজলুল হক চাষীর নাম রেখেছিলেন। চাষীর মামা চাষী ইমাম উদ্দিন শেরেবাংলা এ. কে. ফজলুল হকের সঙ্গে রাজনীতি করতেন। সেই সূত্রেই একদিন ফজলুল হককে একটা নাম দিতে বলা হলে তিনি চাষী ইমাম উদ্দিনের ‘চাষী’ আর কাজী নজরুল ইসলামের ‘নজরুল ইসলাম’ মিলিয়ে একটা নাম দেন।

[৩] ব্যক্তিগত জীবনে ১৯৬৯ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর দেশের অন্যতম বিখ্যাত কাজী পরিবারের কে.জি.আহমেদের মেয়ে জোৎস্না কাজীকে বিয়ে করেন চাষী নজরুল ইসলাম। কর্মজীবনে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতিতে চারবার সভাপতি ছিলেন তিনি। [৪] চাষী নজরুল ইসলামের পরিচালিত উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্রের মধ্যে রয়েছে- ‘ওরা ১১ জন (১৯৭২)’, ‘সংগ্রাম (১৯৭৪)’, ‘ভালো মানুষ (১৯৭৫)’, ‘বাজিমাত (১৯৭৮)’, ‘দেবদাস (১৯৮২)’, ‘চন্দ্রনাথ (১৯৮৪)’, ‘শুভদা (১৯৮৬)’, ‘মিয়া ভাই (১৯৮৭)’, ‘মেঘের পরে মেঘ (২০০৪)’, ‘শাস্তি (২০০৪)’, ‘দুই পুরুষ (২০১১)’ ও ‘দেবদাস (২০১৩)’। [৫] চাষী নজরুল ইসলাম ‘একুশে পদক’, ‘জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার’, ‘স্যার জগদীশচন্দ্র বসু স্বর্ণপদক’, ‘জহির রায়হাণ স্বর্ণপদক’ এবং আন্তর্জাতিক কালাকার পুরস্কারসহ প্রচুর পুরস্কার-সম্মাননা পেয়েছেন। তিনি ২০১৫ সালের ১১ জানুয়ারি মারা যান।