প্রকাশিত: Mon, Jan 23, 2023 3:14 PM
আপডেট: Wed, Feb 8, 2023 4:05 AM

হাসপাতালে প্রতিদিনই বাড়ছে নিউমোনিয়া আক্রান্ত শিশু

শাহীন খন্দকার: বাংলাদেশ শিশু হাসপাতাল ও ইনস্টিটিউটের উপ-পরিচালক ডা. প্রবীর কুমার জানান, বর্তমানে এক মাস থেকে তিন বছর বয়সী শিশুরা নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হচ্ছে বেশি। জ্বর নিয়ে হাসপাতালে ভর্তির পর জানা যায়, এক মাস বয়সি শিশু রাবেয়া নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত। চিকিৎসাধীন অবস্থায় খিঁচুনি শুরু হয় তার। বর্তমানে বাংলাদেশ শিশু হাসপাতাল ও ইনস্টিটিউটে নিবিড় পরিচর্যা ইউনিটে চিকিৎসাধীন রয়েছে সে। এরকম শিশু রোগী আসছে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে। 

উপপরিচালক বলেন, এ হাসপাতালে নিউমোনিয়া ওয়ার্ডের সব শয্যার রোগীদের অক্সিজেন দিতে হচ্ছে। রাজধানীর শিশু ছাড়াও আশেপাশের অন্যান্য জেলার থেকেও রোগী আসছে এখানে। শিশু হাসপাতালে নিউমোনিয়া নিয়ে রোববার সকাল ৮টা থেকে সোমবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ১৫জন শিশু ভর্তি হয়েছে। আউটডোরে রোগী ২৭ আর ইমাজের্ন্সিতে ১৫ সর্বমোট ৪২জন। সোমবার সকাল পর্যন্ত  সর্বমোট ভর্তি রোগীর সংখ্যা ৩১৬ জন।

ডায়রিয়া নিয়ে ভর্তি আছে ৩০ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ডায়রিয়া নিয়ে ভর্তি হয় ১১ শিশু। চলতি মাসে ২৩ তারিখ পর্যন্ত নিউমোনিয়ায় আক্রান্তসহ হৃদরোগ আক্রান্ত ৩০ জন রোগীর মৃত্যু হয়েছে।

হাসপাতালের দায়িত্ব প্রাপ্ত ইপিডেমিওলজিস্ট ডা.এ বি এম মাহফুজ হাসান আল মামুন বলেন, অন্যান্য বছর শীত ধীরে ধীরে বাড়তে থাকে। এবার হঠাৎ টানা বেশ কিছুদিন কনকনে শীত পড়ছে, যা অনেকের কাছেই সহনীয় হচ্ছে না। ফলে শিশু ও বয়স্কদের কষ্ট হচ্ছে।

শিশুদের সাবধানে রাখার পরামর্শ দিয়ে এই চিকিৎসক বলেন, চিন্তার কিছু নেই। সর্দি লাগলে নাক পরিষ্কার রাখতে হবে। শিশুর শ্বাসপ্রশ্বাসের দিকে নজর রাখতে হবে। মায়ের বুকের দুধ দেওয়ার সময়ে শিশুর গলার নিচে ন্যাপকিন রেখে খাওয়াতে হবে এবং নাকে কানে চোখে যাতে দুধ না যায় সেদিকেও খেয়াল রাখতে হবে।

শিশুর বুক বেশি দেবে গেলে, ঘন ঘন শ্বাস নিলে ও খিঁচুনি উঠলে অবশ্যই চিকিৎসকের কাছে নিতে হবে। চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া পাড়া-মহল্লার ফার্মেসি থেকে ওষুধ না খাওয়ানোর ওপর জোর দেন তিনি। শিশুদের সুস্থ রাখতে অভিভাবকদের আরও কিছু পরামর্শ দেন তিনি। সেগুলো হলো শিশুকে পরিষ্কার গরম কাপড় পরিয়ে রাখা, ঘর বদ্ধ না রেখে আলো-বাতাসের প্রবাহ রাখা এবং ঠান্ডার মধ্যে বাচ্চাদের নিয়ে অহেতুক ঘোরাঘুরি না করা। সম্পাদনা: মাজহারুল ইসলাম, সালেহ্ বিপ্লব