• প্রচ্ছদ » শেষ পাতা » [১]বেনারসের বিশ্বনাথ মন্দির সংলগ্ন ঐতিহাসিক জ্ঞানবাপী মসজিদের স্থানে কোনও মন্দির ছিলো কি না, তা তদন্তের নির্দেশ ভারতীয় আদালতের [২]তদন্ত করবে ৫ সদস্যের কমিটি


[১]বেনারসের বিশ্বনাথ মন্দির সংলগ্ন ঐতিহাসিক জ্ঞানবাপী মসজিদের স্থানে কোনও মন্দির ছিলো কি না, তা তদন্তের নির্দেশ ভারতীয় আদালতের [২]তদন্ত করবে ৫ সদস্যের কমিটি

আমাদের নতুন সময় : 14/04/2021

আসিফুজ্জামান পৃথিল: [৩]এক আইনজীবীর আবেদনের প্রেক্ষিতে আদালত বলেছেন, কোনও মন্দির ভেঙে ওই মসজিদ নির্মিত হয়েছিল কি না ভারতের প্রত্নতত্ত্ব বিভাগ তা সমীক্ষা করে দেখবে এবং সমীক্ষার খরচ উত্তরপ্রদেশ সরকারকে বহন করতে হবে। কিন্তু ভারতের মুসলিম নেতারা অনেকেই মনে করছেন কোর্টের এই রায় অসাংবিধানিক এবং প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের ভূমিকাও আগে থেকেই প্রশ্নবিদ্ধ। বিবিসি
[৪] ভারতের প্রাচীন শহর বেনারস বা কাশী। সেখানে হিন্দুদের কাশী বিশ্বনাথ মন্দির ও মুসলিমদের জ্ঞানবাপী মসজিদ পাশাপাশি দাঁড়িয়ে আছে বেশ কয়েকশো বছর ধরে। দুই ধর্মের এই দুটি উপাসনালয়ের মাঝে অভিন্ন দেওয়াল পর্যন্ত আছে। হিন্দুরা অনেকে বিশ্বাস করেন, মুঘল বাদশাহ আওরঙ্গজেবের হুকুমেই দুহাজার বছরের প্রাচীন কাশী বিশ্বনাথ মন্দিরের একটা অংশ ভেঙে ফেলে মসজিদ নিমির্ত হয়েছিলো। এনডিটিভি
[৫] সেই জমি হিন্দুদের ফিরিয়ে দেওয়ার দাবিতেই প্রায় দেড়বছর আগে আদালতে পিটিশন দাখিল করেন আইনজীবী বিজয়শঙ্কর রাস্তোগি। রাস্তোগি বলেন, ‘পুরো জ্ঞানবাপী পরিসর জুড়েই আগে স্বয়ম্ভূ বিশ্বেশ্বর শিবের জ্যোতির্লিঙ্গ মন্দির ছিলো। ধর্মীয় বিদ্বেষের কারণে ১৬৬৯ সালে বাদশাহ আওরঙ্গজেব সেই মন্দির ভেঙে ফেলার ফরমান জারি করেন, তবে সেই ফরমানেও কোথাও মসজিদ গড়ার কথা বলা ছিল না।’
[৬] সিভিল কোর্ট তার দাবির প্রেক্ষিতে এই রায় দিয়েছে, প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি মসজিদ চত্ত্বরের ভেতর সমীক্ষা চালিয়ে দেখবে সেখানে আগে কোনও মন্দির ছিল কি না। উল্লেখ্য সেই কমিটির দুজন সদস্য হতে হবে মুসলিম।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]