• প্রচ্ছদ » আমাদের বাংলাদেশ » [১]নতুন ভারতনীতিতে নিজ ভূখণ্ডে রাস্তাঘাট ছাড়াও বিশে^র বৃহত্তম জলবিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ করছে চীন [২]বাংলাদেশের উচিৎ চীনা অবকাঠামো নির্মাণের অভিজ্ঞতা থেকে কোনও সুবিধা নেওয়া যায় কিনা তা পর্যালোচনা করা: ড.ইমতিয়াজ মাহমুদ


[১]নতুন ভারতনীতিতে নিজ ভূখণ্ডে রাস্তাঘাট ছাড়াও বিশে^র বৃহত্তম জলবিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ করছে চীন [২]বাংলাদেশের উচিৎ চীনা অবকাঠামো নির্মাণের অভিজ্ঞতা থেকে কোনও সুবিধা নেওয়া যায় কিনা তা পর্যালোচনা করা: ড.ইমতিয়াজ মাহমুদ

আমাদের নতুন সময় : 17/04/2021

আসিফুজ্জামান পৃথিল: [৪] সামরিক পদ্ধতিতে নয়, উন্নয়নের মাধ্যমে দিল্লির উপর চাপ প্রয়োগের নীতি নিয়েছে বেইজিং। চীন সরকারের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত এই নীতিকে বলা হচ্ছে ‘বিনিয়োগ ক্ষেত্র সম্প্রসারণ’। টিআরটি। [৫] নীতিতে বলা হয়েছে, ‘আমরা গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্পে বিনিয়োগ করবো। এর মধ্যে রয়েছে অবকাঠামো নির্মাণ, নগর সম্প্রসারণ, যাতায়াত ব্যবস্থার উন্নয়ন, পানি সংরক্ষণ এবং ইয়ারলুং সাংপো (ব্রহ্মপুত্র) নদীতে বৃহদাকার বাঁধ ও জলবিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ।’ [৬] বহুদিন ধরেই ইয়ারলুং সাংপো নদীতে বাঁধ দিতে চায় চীন। এটি তৈরি হলে তা বিশে^র বৃহত্তম বাঁধ ও জলবিদ্যুৎ কেন্দ্র থ্রি গর্জেস ড্যামকে হটিয়ে বিশে^র বৃহত্তম বাঁধে পরিণত হবে। [৭] আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিশ্লেষক ড. ইমতিয়াজ মাহমুদ বলেছেন, নদীর পানির বিষয়ে বাংলাদেশের চেয়েও বেশি দুশ্চিন্তা ভারতের। তবে দিল্লি সবসময় বলে আসছে নদীর পানিতে প্রধানত অধিকার উজানে থাকা দেশের। সুতরাং এই বিষয়ে তাদের বলার মুখ নেই। [৮] ড. ইমতিয়াজের পরামর্শ হিমালয় নদী অববাহিকার সব দেশকে সঙ্গে নিয়ে অববাহিকাভিত্তিক পানি ব্যবস্থাপনায় জোড় দিতে হবে ঢাকাকে। আর নির্দিষ্ট কোনো দেশ বেছে না নিয়ে অবকাঠামো খাতে ও নদী ব্যবস্থাপনায় সুবিধা নেওয়া উচিৎ বাংলাদেশের। সম্পাদনা : মোহাম্মদ রকিব




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]