জনকণ্ঠ জীবনে পাকাচোর ছিলাম!

আমাদের নতুন সময় : 26/05/2021

মাহমুদ হাফিজ : নব্বইয়ের দশকে জনকণ্ঠ ও এটিএন বাংলা সাংবাদিকতা জীবনে পাকাচোর ছিলাম। গুরুত্বপূর্ণদের কথা থেকে ভালো ভালো পয়েন্ট ‘চুরি’ করতাম, ভালো তথ্য কব্জা করে মস্তিষ্কের মেমোরি ড্রাইভে জমা করতাম, মানুষ-প্রকৃতির দৃষ্টিকাড়া ছবি চুরি করে মাথার ডার্করুম ভরতাম। সচিবালয়-সাংবাদিকতার দায়িত্বপ্রাপ্ত সিনিয়র কয়েক বড় ভাইয়ের হাতযশ ছিলো ঈর্ষণীয়। তারা পেশাদারিত্ব অর্জনে ছিলেন আমাদের আইডল। চোরাইপণ্য মস্তিষ্কের ডার্করুম থেকে ডেভেলপ করে ভোক্তাদের সরবরাহ করতাম! দেশ-জাতির উপকার হতো, চারদিকে ধন্য ধন্য পড়তো। জনকণ্ঠে অনুসন্ধানী সাংবাদিক, এটিএন বাংলার ‘সমস্যার অন্তরালে’ পাক্ষিক অনুসন্ধানী তথ্যচিত্রের পরিচালক হিসাবে তথ্যের কারবারিতে ঝুঁকিপূর্ণ ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং জীবনে কম করতে হয়নি। অনুসন্ধানের পুরস্কারও মিলেছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হাতে পেয়েছি স্বর্ণপদক। জনকণ্ঠের ‘নারীপাচার’ প্রতিবেদন ১৯৯৬ সালে ডিআরইউর প্রথম ও একমাত্র স্বর্ণপদক জয় করে। পুরস্কারের জেরে প্রথম বার্ষিক সম্মেলনে সোনার মেডেল গলায় পরার সৌভাগ্য হয় খোদ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত থেকে। যতোদূর মনে আছে, কোনো এনজিও’র নথি থেকে চোরাচোখে ‘তেরোখাদা’, ‘ফরিদা’, ভারতের ‘তিহার জেল’ ‘সোনাগাছির দুর্বার মহিলা সমন্বয় কমিটি’ এ নামগুলো পাই। ঢাকা,কলকাতা, দিল্লি, আগ্রা ও খুলনার তেরোখাদায় সরেজমিন অনুসন্ধান করি। প্রকাশিত হয় সীমান্তঅতিক্রমী নারী পাচারের বিস্তৃত নেটওয়ার্ক, দেশজুড়ে হয় তোলপাড়। পাচার হয়ে যাওয়া ফরিদাকে উদ্ধার করে ফিরিয়ে আনা হয় বাংলাদেশে। এ সূত্রে ১৯৯৭ সালে মালদ্বীপে সার্ক শীর্ষ সম্মেলন কভার করতে যাওয়ার আমন্ত্রণ আসে, যার অন্যতম এজেন্ডা ছিলো নারী পাচাররোধ। সার্কে ভারতের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী আই কে গুজরালকে প্রশ্ন করার সুযোগও পাই। সাতানব্বই সার্ক শীর্ষ সম্মেলেন সিনিয়র সাংবাদিক শফিকুল করিম সাবু, এম শফিকুল করিম ও প্রধানমন্ত্রীর তৎকালীন উপপ্রেসসচিব প্রয়াত রণজিৎ কুমার বিশ্বাসের সহযোগিতা ভোলার নয়। অ¤øমুধুর বিড়ম্বনাও কম হয়নি। সে সময় অনেক সহকর্মী পরিচয় করিয়ে দিতে গিয়ে বলতেন, তিনি নারীপাচারে পুরস্কার পেয়েছেন। একদিন কেউ একজন সম্পূরক প্রশ্ন করলেন, তো, কতোজন এ পর্যন্ত পাচার করেছেন। পেশার সহকর্মীদের প্রায় সবারই অভিজ্ঞতা কমবেশি এরকম। জাতির জন্য উপকারী তথ্য কারবারীদের জন্য শুভকামনা। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]