[১]পাঁচ মাসেও মানবদেহে ট্রায়ালের অনুমোদন পায়নি বঙ্গভ্যাক্স

আমাদের নতুন সময় : 06/06/2021

শিমুল মাহমুদ: [২]ফাইজার-বায়োএনটেকের মতো একই প্রযুক্তির মেসেঞ্জার রাইবোনিউক্লিক এসিড, এমআরএনএ ভ্যাকসিন বঙ্গভ্যাক্স। দেশীয় প্রতিষ্ঠান গ্লোব বায়োটেক আবিষ্কারের ঘোষণা দেয় গেলো বছর জুন মাসে। বিভিন্ন জার্নালে প্রকাশিত হয় তাদের গবেষণা প্রতিবেদনও। এমনকি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রক্রিয়াধীন ভ্যাকসিন তালিকাতেও নাম আসে বঙ্গভ্যাক্সের। [৩] গ্লোব বায়োটেক কোয়ালিটি এন্ড রেগুলেটরি অপারেশন্স মোহাম্মদ মহিউদ্দিন জানান, মানব দেহে পরীক্ষার অনুমতির জন্য গেলো জানুয়ারিতে আবেদন করে প্রতিষ্ঠানটি। এখনো এর অনুমতি মিলেনি। তবে সরকারের প্রতি তাদের পূর্ণ আস্থা রয়েছে। তিনি বলেন, যেহেতু এখনো কোনো প্রতিক্রিয়া জানায়নি তাই আমরা ধরে নিচ্ছি কর্তৃপক্ষ এ ব্যাপারে ইতিবাচক। [৪] নিয়ম অনুযায়ী তিন মাসের মধ্যে ফলাফল জানানোর কথা বাংলাদেশ মেডিকেল রিসার্স কাউন্সিলের। কিন্তু পাঁচ মাসেও অনুমোদন দেয়া না দেয়ার বিষয়ে নীরব বিএমআরসি। এ বিষয়ে বিএমআরসি চেয়ারম্যান ডা. মোদাচ্ছের আলী বলেন, যেহেতু বিএমআরসি স্বায়ত্তশাসিত না সেহেতু এই বিষয়ে আমরা বলতে পারিনা, এটা বলবে সরকার বা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। এর আগে অবশ্য বলেছিলেন, সরকারের হলুদ সংকেতের অপেক্ষায় আছে বিএমআরসি, শিগগিরই অনুমোদন দেয়া হবে। [৫] মানব দেহে পরীক্ষায় সহায়তাকারী প্রতিষ্ঠান সিআরও এর সাথে যুক্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি বিভাগের অধ্যাপক ড সিতেশচন্দ্র

বাছার বলেন, অনুমতি পেলে সফল হবে বঙ্গভ্যাক্স। প্রাথমিক গবেষণা প্রতিবেদনের তার প্রমাণ রয়েছে। [৬] জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ডা. বে-নজীর আহমেদ বলছেন, দেশে ভ্যাকসিন আবিষ্কার সফল নতুন উচ্চতায় উঠতো বাংলাদেশ। সংকটের এই সময়ে হয়রানি নয় নানাভাবে সহায়তা দরকার ছিলো উদ্ভাবকদের। এদিকে, হার্ড ইমিউনিটির জন্য অন্তত সাড়ে বারো কোটি মানুষের ২৫ কোটি ডোজ ভ্যকসিন দরকার। এখন পর্যন্ত পাওয়া গেছে এক কোটির কিছু বেশি। সম্পাদনা: শাহানুজ্জামান টিটু




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]