• প্রচ্ছদ » » মুসলমানরা কবুল বলেই বিয়ে করেন, মালালায় সমস্যা কী!


মুসলমানরা কবুল বলেই বিয়ে করেন, মালালায় সমস্যা কী!

আমাদের নতুন সময় : 09/06/2021

আরিফুজ্জামান তুহিন : ‘একটা ব্যাপার আমি বুঝতে পারি না। কেন সবাই বিয়ে করে। জীবন সাথীকে বেছে নিতে হলে কাগজে সই করার কী দরকার। এটা একটা পার্টনারশিপও তো হতে পারে’Ñমালালা ইউসুফজাইয়ের এ বক্তব্য পর মালালার ওপর সব ঝাঁপিয়ে পড়েছে। অথচ বাংলাদেশে বিয়ে নিবন্ধন করার চল কিন্তু বেশি দিনের না। বিশেষত, মুসলমানরা মুখে মুখেই বিয়ে করতেন। আমি মালালার ভক্ত না, তার চেয়ে আমার বেশি পছন্দ পর্নোস্টার মিয়া খলিফা। এই পর্নোস্টারের বুকের পাটা আছে। পর্নো মুভি ইন্ডাস্ট্রি ইহুদিরা নিয়ন্ত্রণ করেÑ এমন কথা প্রায় বলা হয়। মিয়া খলিফা নিজের পেশা ঝুঁকিতে ফেলে ক্রমাগতভাবে ইসরায়েলকে আক্রমণ করে গেছেন প্যালেস্টাইন প্রসঙ্গে। সেখানে মালালার টুইটার ছিলো আশ্চর্য্যরকম নিরব। কিন্তু মালালা যখন বলেন, ‘জীবন সাথীকে বেছে নিতে হলে কাগজে সই করার কী দরকার ‘তাতে ভুল কী? বিয়ের জন্য কাবিননামায় স্বাক্ষর দেওয়া ব্যাপক আকারে শুরু হয়েছে ২০ থেকে ২৫ বছর। আগে তো কন্যা কবুল বললো কী বলেনি সেটা শোনার আগেই হাজেরান মুরব্বিরা বলতেন, ‘কবুল বলেছেন কন্যা’। আর ইসলামের ইতিহাসে নিহাকনামা নিবন্ধনের তথ্য আমি পাইনি। তালেবান শাসনে আফগানিস্তানে নিকাহ নিবন্ধন করে বিয়ে করতে হতো না। জুলাই ২০১৮ সালে ইউনিসেফ প্রকাশিত আফগানিস্তানের বাল্য বিয়ে সংক্রান্ত প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, আফগানিস্তানে বর্তমানে বিবাহ রেজিস্ট্রেশন আইন থাকার পরও সেখানে ৯১.২ শতাংশ নারীর বিয়ে রেজিস্ট্রেশন করা হয় না। ২০১৬ থেকে বিয়েতে রেজিস্ট্রেশন করার আইন করা হয়। তাহলে তার আগের বিয়েগুলোতে মুখে মুখেই হয়েছে। মুসলমানরাতো কবুল তিনবার বললেই বিয়ে হয়। মালালার ওপর মুসলমানরা কেন ক্ষেপলেন বুঝতে পারছি না। আসলেই কেন ক্ষেপলেন? তিনি তো ইসলামের পক্ষের কথাই বলেছেন। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]