• প্রচ্ছদ » প্রথম পাতা » [১]করোনা সংক্রমণ বাড়ছে [২]সিটের অতিরিক্ত রোগী, খুলনা মেডিকেলে নতুন ভর্তি বন্ধ, উত্তরাঞ্চলেও আইসিইউ সংকট [৩]প্রত্যন্ত অঞ্চলে ক্রিটিক্যাল রোগী বেশি, অনেকে মারা যাচ্ছেন নমুনা পরীক্ষার আগেই


[১]করোনা সংক্রমণ বাড়ছে [২]সিটের অতিরিক্ত রোগী, খুলনা মেডিকেলে নতুন ভর্তি বন্ধ, উত্তরাঞ্চলেও আইসিইউ সংকট [৩]প্রত্যন্ত অঞ্চলে ক্রিটিক্যাল রোগী বেশি, অনেকে মারা যাচ্ছেন নমুনা পরীক্ষার আগেই

আমাদের নতুন সময় : 11/06/2021

শিমুল মাহমুদ, মইনউদ্দীন ও জাফর ইকবাল: [৪] রোগী ও তাদের স্বজনদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, হাসপাতাল দূরে হওয়ায় রোগী নিয়ে আসতে আসতে অনেক সময় চলে যাচ্ছে। এছাড়া সাধারণ জ¦র ও শ^াসকষ্টকে গুরুত্ব না দেওয়া এবং হাসপাতালের প্রতি অনীহা করোনা রোগীর অবস্থা জটিল করে তুলছে।
[৫] মারা যাওয়া রোগীদের ৯০ শতাংশই আগে থেকে দীর্ঘমেয়াদি বা অসংক্রামক রোগে ভুগছিলেন। বিশেষ করে উচ্চ রক্তচাপ, হৃদরোগ, অনিয়ন্ত্রিত ডায়াবেটিস এবং কিডনীর সমস্যা।
[৬] রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের উপ-পরিচালক সাইফুল ফেরদৌস জানান, বৃহস্পতিবার চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যাওয়া ১২ জনের মধ্যে ৫ জন পরীক্ষার আগেই মারা গেছেন। পহেলা জুন থেকে ১০ জুন পর্যন্ত এ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে মারা গেছেন ৯২ জন। তাদের ৫৬ জনের পজিটিভ ছিলো, বাকিরা উপর্সগ নিয়ে মারা গেছেন। [৭] বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা পর্যন্ত কোভিড ইউনিটে ২৭১ শয্যার বিপরীতে রোগী ছিলো ২৯০ জন। তাদের মধ্যে রাজশাহীর ১৪২ জন আর চাঁপাইনবাবগঞ্জের ১১১ জন। আইসিইউতে রয়েছেন ১৮ জন। একটি আইসিইউ  শয্যার বিপরীতে অপেক্ষমান ৩৫ জন।
[৮] খুলনা বিভাগে নতুন করে আরো শনাক্ত হয়েছে ৫৭৮ জনের, যা সংক্রমণের শুরু থেকে এ পর্যন্ত বিভাগে সর্বোচ্চ। মারা গেছে আরো ৫ জন। বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদফতরের জেলাভিত্তিক করোনা-সংক্রান্ত তথ্য বিশ্লেষণে দেখা য়ায়, বিভাগে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যার দিক থেকে খুলনা জেলা শীর্ষে রয়েছে। এ পর্যন্ত খুলনায় শনাক্ত হয়েছে ১১ হাজার ১০১ জন। মারা গেছেন ১৯২ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ৯ হাজার ৫৩৬ জন।
[৯] খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালের পরিচালক ডা. মো. রবিউল হাসান জানান, করোনায় মারা গেছেন দুজন। ১০০ শয্যার বিপরীতে হাসপাতালে ভর্তি আছেন ১২৬ জন রোগী। আইসিইউতে ১২ জন এবং এইচডিইউতে ৩০ জন আছেন। নতুন করে ভর্তি হয়েছেন ৫০ জন রোগী। আর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৪৭ জন।
[১০] নাটোরে নতুন করে আরও ৬২ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। করোনায় একজন ও উপসর্গ নিয়ে একজনের মৃত্যু হয়েছে।
[১১] নোয়াখালীতে ৪১৪টি নমুনা পরীক্ষা করে আরও ৮৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। আক্রান্তের হার ২১ দশমিক ০১ শতাংশ।
[১২] জয়পুরহাটে একদিনে ১০১ জন শনাক্ত হয়েছেন, মারা গেছেন আরো একজন।
[১৩] ঠাকুরগাঁও জেলায় নতুন করে ৩৯ জন শনাক্ত হয়েছে। মারা গেছেন আরো দুই জন।
[১৪] বাগেরহাটের মোংলায় শনাক্তের হার বেড়ে ৬৮ শতাংশ হয়েছে। ১৫৫ জনের পরীক্ষায় ৬১ জনের পজিটিভ এসেছে। শনাক্তের হার ৩৯ শতাংশ।
[১৫] যশোরে গত দুই দিনে শনাক্তের হার ১৬ শতাংশ বেড়ে ৫৮ হয়েছে।
[১৬] চাঁপাইনবাবগঞ্জে নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ১৫৮ জন। মৃত্যু হয়েছে এক জনের। সম্পাদনা: সালেহ্ বিপ্লব




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]