• প্রচ্ছদ » আমাদের বাংলাদেশ » [১]করোনায় বেকার চাটমোহরের পাখা-শিল্পীর আক্ষেপ: অনেক বার সাংবাদিকরা আইচে, ছবি তুলি পেপারে দিছে কিন্তু একটি টাকাও পাইনি


[১]করোনায় বেকার চাটমোহরের পাখা-শিল্পীর আক্ষেপ: অনেক বার সাংবাদিকরা আইচে, ছবি তুলি পেপারে দিছে কিন্তু একটি টাকাও পাইনি

আমাদের নতুন সময় : 13/06/2021

জাহাঙ্গীর আলম: [২] জ্যৈষ্ঠের তাপদাহে অতিষ্ঠ জনজীবন, গরমে কদর বেড়েছে তালপাখার। কিন্তু পাবনার চাটমোহর উপজেলার পাখাগ্রাম খ্যাত মূলগ্রাম ইউনিয়নের মহেষপুর গ্রামে এখন পাখা কারিগরদের ব্যস্ততা নেই।
[৩] উপজেলা সদর থেকে প্রায় ১০ কিলোমিটার দূরের এই গ্রামে ৫০টির বেশি পরিবার তালপাখা তৈরি করে জীবিকা নির্বাহ করে। মহামারী করোনায় সবকিছু লণ্ডভণ্ড হয়ে গেছে।
[৪] কথা বলে জানা গেছে, দূরপাল্লার বাস ও ট্রেন বন্ধ থাকায় তারা পাখা বানানো বন্ধ করে দিয়েছেন। তারা যেমন বাজারে পাঠাতে পারছেন না, বেপারীরাও আসছেন না। তাই পাখা তৈরির সঙ্গে জড়িত অনেকে এখন দিনমজুরি করেন। কয়েকটি পরিবার এখনো স্বল্প পরিসরে পাখা তৈরি করে আশপাশের এলাকায় বিক্রি করছে।
[৬] বয়োজ্যেষ্ঠ আব্দুল কাদের ও তার স্ত্রী বেদেনা খাতুনকে দেখা গেলো কুঁড়ে ঘরের সামনে বসে তৈরি পাখায় রঙের আঁচড় দিচ্ছেন।
[৭] তারা জানান, সরকারি কোনো অনুদানই পাননি এ পর্যন্ত, ঈদের সময় অনেকে সাড়ে চারশো করে টাকা পেলেও, তারা পাননি।
[৮] আদি পেশা ছেড়ে দিনমজুরি শুরু করেছেন যারা, কথা হলো তাদের ক’জনের সঙ্গে। জানা গেলো, এনজিও থেকে ঋণ নিয়ে পাখা তৈরির উপকরণ কিনতেন তারা। পাখা বিক্রি না হওয়ায় এনজিও’র কিস্তি দিতে পারছিলেন না। বাধ্য হয়ে অন্য কাজ করছেন। সম্পাদনা: মুরাদ হাসান, সালেহ্ বিপ্লব




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]