• প্রচ্ছদ » আমাদের বাংলাদেশ » [১]ঘরমুখো মানুষের স্রোতে ভেসে গেছে স্বাস্থ্যবিধি [২]বিশেষজ্ঞদের আশঙ্কা, দুই-তিন সপ্তাহের মধ্যে সংক্রমণ কয়েকগুণ বাড়বে, মৃত্যুও [৩]বিপর্যয় ঠেকানোর প্রথম শর্ত মাস্ক ব্যবহার


[১]ঘরমুখো মানুষের স্রোতে ভেসে গেছে স্বাস্থ্যবিধি [২]বিশেষজ্ঞদের আশঙ্কা, দুই-তিন সপ্তাহের মধ্যে সংক্রমণ কয়েকগুণ বাড়বে, মৃত্যুও [৩]বিপর্যয় ঠেকানোর প্রথম শর্ত মাস্ক ব্যবহার

আমাদের নতুন সময় : 18/07/2021

শিমুল মাহমুদ: [৪] গেলো ঈদে সারাদেশে মানুষের যাতায়াতে করোনার সংক্রমণ বিস্তৃতি পায়, এবারও একই পরিস্থিতি। বরং বিধিনিষেধ না থাকায় ঘরমুখো মানুষ যেনো আরো বেপরোয়া। এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে দ্রুত ছড়িয়ে পড়া ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট। ফলে গতো ঈদের চেয়ে এবার আরো বেশি খারাপ হবে পরিস্থিতি, আশঙ্কা করছেন জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। [৫] বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ঈদকেন্দ্রিক কেনাকাটা এবং পথেঘাটে যে ভিড়, তাতে সর্বনাশের ষোলকলা পূর্ণ হবে। ঘরে ঘরে আক্রান্তের সংখ্যা আরো তিন গুণ বাড়তে পারে। [৬] বিএসএমএমইউ’র সাবেক উপাচার্য ও ভাইরোলোজিস্ট অধ্যাপক ডা. নজরুল ইসলাম বলেন, লকডাউনের তেমন সুফল আমরা পাইনি। ঈদে বাড়ি ফেরার কারণে শহর গ্রাম সব একাকার হয়ে যাবে। সরকারের উচিৎ হবে, জরিমানা না করে প্রথমে মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করা। ভয় ভাঙ্গিয়ে প্রতিটি পরিবারকে নিজ¦স্ব ব্যবস্থায় স্বাস্থ্যবিধি মানতে উদ্বুদ্ধ করা। [৭] প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত চিকিৎসক অধ্যাপক এ বি এম আব্দুল্লাহ বলেন, এভাবে চলাচল করতে থাকলে, এটার শেষ হবে না। আমরা যদি নিজেদের সর্বনাশ নিজেরাই ডেকে আনি, তাহলে পরিত্রাণ পাওয়া মুশকিল। বিশেষ করে তরুণরা বয়স্কদের মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিচ্ছে। [৮] যুক্তরাজ্যের শেফিল্ড ইউনিভার্সিটির সিনিয়র রিসার্চ অ্যাসোসিয়েট ড. খোন্দকার মেহেদী আকরাম বলেন, মৃত্যু কমাতে হলে সব জেলায় পর্যাপ্ত অক্সিজেন ও হাই ফ্লো ন্যাজাল ক্যানুলা সরবরাহ করতে হবে। আইসিইউ সুবিধা অতি দ্রুত ২ থেকে ৩ গুণ বাড়াতে হবে। সম্পাদনা: সালেহ্ বিপ্লব




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]