সম্পূর্ণ নিউজ
Md. Alal Hossain
2 months ago
প্রাণঘাতী স্তন ক্যান্সার বাড়ছে
Md. Alal Hossain
অনলাইন ডেস্ক

সালেহ্ বিপ্লব: নারীদের ক্যান্সার সম্পর্কে সচেতনতা সৃষ্টিতে কাজ করেন ডা. নাহিদা খানম। তিনি জানান, নারীর যে সব ক্যান্সার হয়, তাতে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু ঘটে ব্রেস্টস ক্যান্সারে। বিশ্বে প্রতি আটজনের মধ্যে একজন নারী স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত হচ্ছেন। পুরুষেরও এই ক্যান্সার হয়। বাংলাদেশেও বাড়ছে স্তন ক্যান্সারে আক্রান্তের সংখ্যা।

বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার ইন্টারন্যাশনাল এজেন্সি ফর রিসার্চ অন ক্যান্সারের (আইএআরসি) হিসেবে, বাংলাদেশে প্রতি বছর ১৩ হাজারের বেশি নারী নতুন করে স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত হন। মারা যান ৬৭৮৩ জন। নারী ক্যান্সার রোগীদের মধ্যে ১৯% স্তন ক্যান্সারে ভোগেন। নারী-পুরুষ মিলে এই হার ৮.৩%।

বাংলাদেশে নারীরা যেসব ক্যান্সারে আক্রান্ত হন তার মধ্যে স্তন ক্যান্সার শীর্ষে রয়েছে। স্তনের কিছু কোষ অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে গেলে, ওই অনিয়মিত ও অতিরিক্ত কোষগুলো বিভাজনের মাধ্যমে টিউমার বা পিণ্ডে পরিণত হয়।সেটি রক্তনালীর লসিকা (কোষ-রস) ও অন্যান্য মাধ্যমে শরীরের বিভিন্ন জায়গায় ছড়িয়ে পড়ে। এই ছড়িয়ে যাওয়ার প্রবণতাই ক্যান্সার।

চিকিৎসকদের মতে, যেকোন নারীই স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত হতে পারেন। আর পুরুষরাও এই ক্যান্সারে অনেক আক্রান্ত হচ্ছেন। বাংলাদেশেও স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত পুরুষ রোগী পাচ্ছেন চিকিৎসকেরা।

তবে পুরুষা অনেকেই তাদের স্তন ক্যান্সার সংক্রান্ত সমস্যা নিয়ে কথা বলতে চান না, একটা কুসংস্কার রয়েই গেছে। গণমাধ্যমের কাছে এ কথা বলেন জাতীয় ক্যান্সার গবেষণা ইন্সটিটিউটের এপিডেমোলজি বিভাগের ডা. হাবিবুল্লাহ তালুকদার । আর নারীদের ক্ষেত্রে নীরবতা তো অনেক অনেক বেশি। নীরব থাকতে থাকতে তারা এ বিষয়ে সতর্ক থাকার কথাও যেনো ভুলে গেছেন। 

বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার প্রতিবেদনে জানা যায়, একটি বেসরকারী ফার্মে চাকরি করেন স্বপ্না আক্তার। অফিস থেকে রাতে বাসায় ফিরেই তার প্রথম কাজ ভালো করে গোসল করা। রাত হয়ে যাওয়ায় প্রায় প্রতিদিনই তাড়াহুড়ো করে  গোসল শেষ করতে হয় তাকে। কিন্তু সেদিন হঠাৎ করেই তার কেন জানি মনে হল ডান স্তনের উপরের দিকে কি যেন চাকার মত হাতে অনুভব করছে। ভালো করে বাম ন্তনও পরীক্ষা করলো সে। কিন্তু কোথাও আর চাকার মত অনুভব হচ্ছে না। শুধুমাত্র ডান স্তনের উপরের অংশেই চাকা অনুভব হচ্ছে। আর চাকাটি বেশ বড়ও। এতদিন ধরে বুঝতে না পারায় নিজের উপরই রাগ হলো তার। সিদ্ধান্ত নিল কাল অফিস ছুটির পর ডাক্তারের কাছে যাওয়ার।

রাহেলার বয়স এখন ৩৯। চার সন্তানের মা রাহেলা মূলত গৃহবধু। থাকতেন নরসিংদীর এক প্রত্যন্ত গ্রামে। তার হঠাৎ করেই রোগটি ধরা পড়ে। আর যখন জানতে পারেন যে তার ব্রেস্টে টিওমার তখন আর সময় ছিলনা। আবার দ্রুত যে চিকিৎসা করাবেন তারও সামর্থ্য ছিলনা কৃষক স্বামীর। এক প্রকার বিনা চিকিৎসায় মারা যান রাহেলা।

গাইনী বিশেষজ্ঞ ডা. নুরানী নিরু বলেন, এমন অনেক মেয়ে আর মহিলা রয়েছেন যারা ব্রেস্ট ক্যান্সারে আক্রান্ত। তবে চাকার মত অনুভব করলেই যে ক্যান্সার, তা কিন্তু নয়। কিন্তু আমাদের মত দেশের নারীদের সবচেয়ে প্রধান সমস্যা হচ্ছে লজ্জা। তারা লজ্জায় এসব রোগের কথা মুখ ফুটে কাউকে বলতে পারেন না। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই দেখা যায় একেবারে শেষ অবস্থায় যখন রোগী একেবারে সহ্য করতে পারছেন না তখন তাকে ডাক্তারের কাছে নিয়ে আসা হয়। এমন ক্ষেত্রে ডাক্তারদেরও তেমন কিছু করার থাকে না।

তিনি বলেন, স্তনে চাকা দেখা দিলেই আতংকিত হওয়ার কিছু নেই। তবে অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে।

ডাক্তাররা ২০ বছর বয়স থেকেই নিজে নিজে স্তন পরীক্ষা করার পরামর্শ দিচ্ছেন নারীকে। কিন্তু এ জন্য সচেতনতা বাড়াতে হবে, বললেন ডা. সুলতানা চৌধুরী। তিনি বলেন, প্রতিটি পুরুষ তার জীবনে সরাসরি চারজন নারীর সঙ্গে যুক্ত। মা, বোন, স্ত্রী ও কন্যা। পুরুষের দায়িত্ব এই চার নারীকে ক্যান্সার সচেতন করে তোলা। নিজে বলতে না পারলে মায়ের মাধ্যমে বোনকে বলতে হবে।  স্ত্রীর মাধ্যমে কন্যাকে বলাতে হবে। সোজা কথা এর চার নারীকে সচেতন করে তুলতে হবেই, সে যেভাবে হোক। বাংলাদেশে বর্তমানে চিকিৎসা ব্যবস্থার সামর্থ্য, মানুষ সচেতন হলে ব্রেস্ট ক্যান্সারের হার অনেকটাই কমানো সম্ভব। সম্পাদনা: খালিদ আহমেদ

সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
মিতু হত্যা: সাবেক এসপি বাবুল আক্তারের করা মামলা পুনঃতদন্তের নির্দেশ আদালতের
ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্টের ১৬তম ‘কর্নেল অব দি রেজিমেন্ট’ হিসেবে অভিষিক্ত হলেন সেনাবাহিনী প্রধান
অনুমোদের পর করোনার ট্যাবলেট দেশের বাজারে, মূল্য ৭০ টাকা
[১]এসকে সিনহাসহ ১১ জনের মামলার রায় আজ
ফেনীতে একাত্তরের গণহত্যা ও বধ্যভূমির ওপর নির্মিত ‘গোলপোস্ট’ মঞ্চস্থ
সংকটে আবাসন খাত
বীর টাওয়ার,
১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা),
ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে )
সম্পাদক: নাসিমা খান মন্টি
চেয়ারম্যান: নাঈমুল ইসলাম খান
পরিচালক: মো. কামরুল হুদা
© ২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | Amader Shomoy Media Group.